প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

[১] মোবাইলে স্ত্রীর আপত্তিকর ছবি, প্রবাসীকে হত্যা

এএইচ রাফি, ব্রাহ্মণবাড়িয়া: [২] রোববার সকালে জেলার বিজয়নগরে লোকমান নামের এক প্রবাসীর মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ। শনিবার মধ্য রাতে উপজেলার বিষ্ণুপুর ইউনিয়নের কালাছড়া এলাকা থেকে হত্যার পর মাটি চাপা দেওয়া মরদেহটি উদ্ধার করা হয়। প্রবাসী লোকমান জেলার নাসিরনগর উপজেলার শ্রীঘর এলাকার নূরুল ইসলামের ছেলে।

[২] এই হত্যাকাণ্ডের সাথে জড়িত থাকায় উপজেলা সিঙ্গারবিল ইউনিয়নের শ্রীপুর গ্রামের লেবদ আলীর ছেলে খোকনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। খোকন প্রাথমিক অবস্থায় পুলিশের কাছে নিজে দোষ স্বীকার করে জবানবন্দি দিয়েছে।

[৩] বিজয়নগর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আতিকুর রহমান জানান, গ্রেফতারকৃত খোকন প্রাথমিক অবস্থায় খুনের কথা স্বীকার করেছে। খোকন জানায়, তার স্ত্রী সৌদি আরবে থাকেন। সেখানে মোবাইল ফোনের মাধ্যমে পরিচয় হয় ওমান প্রবাসী লোকমানের সাথে। দুইজনের মাঝে মোবাইলে যোগাযোগ ছিল। ওমান প্রবাসী লোকমান দেশে এসেছেন জেনে, খোকনের প্রবাসীব স্ত্রী মোবাইলে লোকমানকে তার ছোট বোনকে বিয়ের প্রস্তাব দেন এবং বিজয়নগরে এসে খোকনের সাথে যোগাযোগ করে তার বোন কে দেখতে বলেন। ওমান প্রবাসী লোকমান খোকনের সাথে মোবাইলে যোগাযোগ করে ১০জুন বিজয়নগর আসেন।

[৪] খোকন স্ত্রীর কথা অনুযায়ী প্রবাসী লোকমানকে তার শ্যালিকাকে দেখাতে উপজেলার কালাছড়াতে শশুর বাড়িতে নিয়ে যায়। সেখানে যাওয়ার পর লোকমানের মোবাইলটি দেখতে খোকন হাতে নেয়। মোবাইল হাতে নেওয়ার পর খোকন তার প্রবাসী স্ত্রী উলঙ্গ ছবি লোকমানের মোবাইলে দেখে। এই ছবি দেখে খোকন তার শ্যালক শুক্কুর আলীকে জানায়। খোকন ও তার শ্যালক শুক্কুর আলী লোকমানকে হত্যার পরিকল্পনা করেন। সেই পরিকল্পনা অনুযায়ী ১০জুন মধ্যরাতে দুইজন লোকমানকে পিটিয়ে হত্যা করে। বিষয়টি খোকন তার শশুর কাইয়ূমকে জানায়। পরে তারা খোকন, তার শশুর কাইয়ুম ও শ্যালক শুক্কুর আলী একটি জমির মাঝে লোকমানের মরদেহ পুতে ফেলে।

[৫] ওসি আতিক আরও জানান, খোকনকে সন্দেহমূলক ভাবে আটকের পর সে তার দোষ স্বীকার করেছে। শনিবার খোকনের দেওয়া তথ্যে লোকমানের মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে। রোববার বিকেলে খোকনকে ১৬৪ধারায় আদালতে জবানবন্দি দিতে আদালতে প্রেরণ করা হয়েছে। তার শ্বশুর কাইয়ুম ও শ্যালককে আটকে অভিযান চলছে। সম্পাদনা: জেরিন আহমেদ

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত