প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

[১] জুনটিনথ ডে, যুক্তরাষ্ট্রে দাসপ্রথার অবসান হয়

আসিফুজ্জামান পৃথিল : [২] ১৮৬৩ সালের ১৯ জুন টেক্সাসের গ্লেভস্টোনে দাঁড়িয়ে ইউনিয়ন আর্মির জেনারেল গর্ডন গ্রেন্জার পড়ে শুনিয়েছিলেন প্রেসিডেন্ট আব্রাহাম লিঙ্কনের সনদ। টেক্সাস আজ থেকে দাসপ্রথা মুক্ত। টেক্সাস, জর্জিয়াসহ স্লেভ স্টেটগুলোতে এরপর শুরু হয় কৃষ্ণাঙ্গ হত্যা। গৃহযুদ্ধের পর রচনা হয় সবচেয়ে রক্তাক্ত ইতিহাস।

[৩] টেক্সাস ছিলো যুক্তরাষ্ট্রের সবচেয়ে বড় স্লেভ স্টেট। রাজ্যটির প্রতিটি বাড়িতে কমপক্ষে একজন দাস ছিলেন। আব্রাহাম লিঙ্কনের দাসপ্রথা রদ সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে মূলত টেক্সাসের বিরোধিতাই জন্ম দেয় মার্কিন গৃহযুদ্ধের।

[৪] এরপরে সে বছরের ডিসেম্বরে পাস হয় মার্কিন সংবিধানের ১৩তম সংশোধনী। পুরো যুক্তরাষ্ট্র থেকে বিলুপ্ত করা হয় দাসপ্রথা। সকল আফ্রিকান আমেরিকান পান মার্কিন নাগরিকত্ব। আঙ্কেল টমরা অধিকার পান নিজেদের আমেরিকান বলার।

[৫] এরপরেই হত্যা করা হয় লিঙ্কনকে। এবছর দিনটি বিশেষভাবে পালিত হয়েছে যুক্তরাষ্ট্রে। জর্জিয়ার এদিন ভাষণ দেবার কথা ছিলো প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের। এটি ছিলো তার রাজনৈতিক র‌্যালী। কিন্তু তুমুল প্রতিবাদের মুখে তা পেছাতে বাধ্য হন তিনি।

[৬] জর্জ ফ্লয়েড হত্যাকাণ্ডের প্রতিবাদে যুক্তরাষ্ট্র এখন উত্তাল। বিক্ষোভকারীরা বলছেন, কালো মানুষদের জন্য যেভাবে প্রাণ দিয়েছিলেন আব্রাহাম লিঙ্কন। একই ভাবে প্রাণ দিয়েছেন জর্জ ফ্লয়েড। যুক্তরাষ্ট্র কাগজে কলমে দাসত্ব মুক্ত হলেও, মানুষের মন থেকে দাসত্ব যায়নি। এখন নতুন যুদ্ধ হলো মানুষের মনকে দাসত্বের শৃঙ্খল থেকে মুক্ত করা। সম্পাদনা: ইকবাল খান

সর্বাধিক পঠিত