প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

[১] প্রতিবাদের মুখে ভেঙ্গে দেয়া হলো মিনেপোলিসের পুলিশ বাহিনী [২] ওয়াশিংটন ডিসি থেকে সেনাবাহিনী প্রত্যাহার করলেন ট্রাম্প

লিহান লিমা: [৩] যুক্তরাষ্ট্রে ১৩তম দিনের মতো চলছে ‘ব্ল্যাক লাইভস ম্যাটার’ বিক্ষোভ।

[৪] বিক্ষোভকারীদের সঙ্গে একাত্মতা ঘোষণা করলেন মিট রমনি।

[৫] মিনেসোটার শ্বেতাঙ্গ পুলিশ অফিসারের হাতে নিহত কৃষ্ণাঙ্গ যুবক জর্জ ফ্লয়েড হত্যার প্রতিবাদে যুক্তরাষ্ট্রের রাজ্যে রাজ্যে চলছে বিক্ষোভ-প্রতিবাদ। তারা ফ্লয়েড হত্যার সঙ্গে জড়িত পুলিশ সদস্যদের শাস্তি দাবী ছাড়াও দীর্ঘদিন ধরে চলা পদ্ধতিগত পুলিশি নির্যাতনের অবসান ও পুলিশ বিভাগের সংস্কারের দাবী জানিয়েছেন। আল জাজিরা

[৫] গত দুই দিন ধরে ওয়াশিংটন ডিসিতে বিক্ষোভ চরমে উঠে। হাজার হাজার আন্দোলনকারীর প্রতিবাদ, র‌্যালি ও স্লোগানে কেঁপে ওঠে রাজপথ। মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প বিক্ষোভ দমনে প্রথমে কেন্দ্রীয় নিরাপত্তা বাহিনী মোতায়েন করেন। কিন্তু পরে মেয়র, প্রতিরক্ষা বাহিনীর বিরোধীতার মুখে ওয়াশিংটন থেকে ন্যাশনাল গার্ড প্রত্যাহার করার নির্দেশ দেন তিনি।

[৬] এদিকে মিনেপোলিসের নগর পরিষদ বলেছে তারা শহরের পুলিশ বিভাগ ভেঙ্গে দিতে চায়। স্থানীয় কাউন্সিলের ১৩ সদস্যের মধ্যে ৯জন শহরে পুলিশ বিভাগের বদলে ‘জননিরাপত্তার নতুন মডেল’ এর কথা বলছন। এদিকে মেয়র জ্যাকক ফ্রে এ উদ্যোগের বিরোধীতা করায় তার বিরুদ্ধে ক্ষেপেছেন বিক্ষোভকারীরা।

[৭] ওয়াশিংটন ডিসির পেনসেলভেনিয়ায় বিক্ষোভকারিদের সঙ্গে যোগ দিয়েছেন রিপাবলিকান সিনেটর মিট রমনি। নিজের ইনস্ট্রাগ্রামে পোস্ট করা এক ছবিতে দেখা যায়, মাস্ক পরে বিক্ষোভকারীদের সঙ্গে র‌্যালিতে যোগ দিয়েছেন তিনি। ওয়াশিংটন পোস্টের সাংবাদিককে রমনি বলেন, ‘আমাদের সহিসংসতা ও নৃশংসতা বন্ধের উপায় খুঁজতে হবে, জনগণকে এটা বোঝাতে হবে যে কৃষ্ণাঙ্গদের জীবনের মূল্য রয়েছে।’ সিএনএন

[৮] যুক্তরাষ্ট্রের কিছু অঙ্গরাজ্যে পরিস্থিতি স্বাভাবিক হয়ে এসেছে। নিউইয়র্কে এক সপ্তাহ ধরে চলা কারফিউ তুলে নেয়া হয়েছে। নিউইয়র্ক পুলিশ বিভাগের জন্য বরাদ্দকৃত কিছু তহবিল তরুণ ও সামাজিক সেবা খাতে ব্যয় করার পরিকল্পনা গ্রহণ করেছে। মিনেপোলিসের নগর পরিষদের প্রেসিডেন্টও একই কথা বলেছেন।

[৯] তবে ব্রিটেন, স্পেন, জার্মানি, ইতালি ও অস্ট্রেলিয়ায় বিক্ষোভ অব্যাহত রয়েছে। ইংল্যান্ডের ব্রিস্টলে বিক্ষোভকারীরা ১৭শ শতকের দাস ব্যবসায়ীর মূর্তি উপড়ে ফেলেছে। লন্ডনসহ বিশ্বের প্রধান প্রধান শহরে র‌্যালি হয়েছে। লন্ডনে ১২ জন বিক্ষোভকারীকে আটক করা হয়েছে। দ্য গার্ডিয়ান

[১০] স্থানীয় সময় শনিবার জর্জ ফ্লয়েডের স্মরণসভায় শত শত মানুষ যোগ দিয়ে শোক প্রকাশ করেছেন। আরো তিনটি ইভেন্টের পরিকল্পনা করা হচ্ছে।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত