প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

[১] মর্যাদাপূর্ণ ইউনাইটেড নেশনস পাবলিক সার্ভিস অ্যাওয়ার্ড-২০২০’ অর্জন ভূমি মন্ত্রণালয়ের

আনিস তপন : [২] আজ এক তথ্য বাবরণীতে এ কথা জানায় সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয় বলা হয়, ই-নামজারি (‘ই-মিউটেশন’) উদ্যোগ বাস্তবায়নের স্বীকৃতি হিসেবে এ পুরস্কার অর্জন করেছে সরকার।

[৩] বাংলাদেশের ভূমি মন্ত্রণালয় ‘ই-মিউটেশন’ কার্যক্রমের জন্য ‘স্বচ্ছ ও জবাবদিহি পাবলিক (সরকারি) প্রতিষ্ঠানের উন্নয়ন’ ক্যাটাগরিতে ‘ইউনাইটেড নেশনস পাবলিক সার্ভিস অ্যাওয়ার্ড ২০২০’ পেয়েছে।

[৪] জাতিসংঘের অর্থনৈতিক ও সামাজিক বিষয়ক বিভাগের আন্ডার সেক্রেটারি জেনারেল ল্যু জেনমিন জাতিসংঘে নিযুক্ত বাংলাদেশের স্থায়ী প্রতিনিধি রাষ্ট্রদূত রাবাব ফাতিমাকে দেয়া এক চিঠির মাধ্যমে শুক্রবার (আজ) আনুষ্ঠানিক ভাবে ভূমি মন্ত্রণালয়কে বিষয়টি জানায় পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়।

[৫] চিঠিতে জাতিসংঘের অর্থনৈতিক ও সামাজিক বিষয়ক বিভাগের আন্ডার সেক্রেটারি জেনারেল বলেন, “জনস্বার্থে সেবার অসামান্য অর্জনে (ভূমি) মন্ত্রণালয়টি শ্রেষ্ঠত্বের পরিচয় দিয়েছে। তিনি বলেন, আমি বিশ্বাস করি, ভূমি মন্ত্রণালয়ের এই উদ্যোগ বাংলাদেশে জনপ্রশাসনের উন্নয়নে তাৎপর্যপূর্ণ অবদান রেখেছে।

[৬] প্রকৃতপক্ষে, এই কাজ (ই-নামজারি)জনসেবায় ব্রতী হতে অন্যদের জন্য অনুপ্রেরণা এবং উৎসাহ হিসাবে কাজ করবে বলেও জানান, আন্ডার সেক্রেটারি জেনারেল।

[৭] স্থানীয়, জাতীয় ও বৈশ্বিক সম্প্রদায়ের জন্য প্রদত্ত সেবার গুণগত মান ও উৎকর্ষ উদযাপনের উদ্দেশ্যে জাতিসংঘ সাধারণ পরিষদ রেজ্যুলেশন নম্বর ৫৭/২৭৭-এর মাধ্যমে ২৩ জুনকে ‘জাতিসংঘ পাবলিক সার্ভিস দিবস’ হিসেবে ঘোষণা করে।

[৮] প্রতিবছর ২৩ জুন, যথাযোগ্য আনুষ্ঠানিকতার সঙ্গে জাতিসংঘ দিবসটি উদযাপন করে, এবং বিশ্বজুড়ে পাবলিক (সরকারি) খাতে গৃহীত সর্বোত্তম উদ্ভাবনী উদ্যোগসমূহকে পুরস্কারের মাধ্যমে স্বীকৃতি দিয়ে থাকে।

[৯] বিশ্বব্যাপী করোনাভাইরাস মহামারী-এর প্রাদুর্ভাবের প্রেক্ষাপটে জাতিসংঘ এ বছর পাবলিক সার্ভিস পুরস্কার বিতরণ অনুষ্ঠান স্থগিত করেছে। জাতিসংঘ সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ও অনলাইনে বিভিন্নমুখী প্রচার কার্যক্রমের মাধ্যমে এই পুরস্কার বিজয়ের বিষয়টি তুলে ধরার পরিকল্পনা গ্রহণ করেছে।

[১০] উল্লেখ্য, সারা দেশে ১ জুলাই ২০১৯ হতে শতভাগ ই-নামজারি বাস্তবায়ন শুরু হয় (তিনটি পার্বত্য জেলা বাদে)। জাতির জনকের জন্মশতবার্ষিকী তথা মুজিব বর্ষ উপলক্ষ্যে এ বছরের ১৭ মার্চ থেকে নামজারির জন্যে কোন ম্যানুয়াল আবেদন গ্রহণ না করার ব্যাপারে নীতিগত সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে এবং সে অনুযায়ী কাজ হচ্ছে। বর্তমানে ৪৮৫ টি উপজেলা ভূমি অফিস ও সার্কেল অফিসে এবং ৩৬১৭ টি ইউনিয়ন ভূমি অফিস ই-নামজারি বাস্তবায়ন হচ্ছে, ২০১৯-২০ সনের মে মাস পর্যন্ত ১৫,৫৮,৭৭০ টি আবেদন পাওয়া যায় এবং ০১৯-২০ সনে ১৪,৭২,৫৮৮ টি আবেদন অনলাইনে নিষ্পত্তি হয়েছে। ই-নামজারির জন্য ভূমি সেবা গ্রহণে সময় (Time) ও পরিদর্শন (Visit) কমে যাবার ফলে ব্যয় (cost) কমে যাচ্ছে। এর ফলে নাগরিক সন্তুষ্টি বৃদ্ধি পাচ্ছে।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত