প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

[১] রাজধানীর মিরপুরে ত্রাণ বিতরণকে কেন্দ্র করে দুই গ্রুপে সংঘর্ষে আহত ১২

ইসমাঈল হুসাইন ইমু : [২] মঙ্গলবার মধ্যরাতে মিরপুর-১১ এর সি ব্লকের ১০ নম্বর সড়কের এ ঘটনায় আহতদের চিকিতসা দেয়া হয়েছে।

[৩] স্থানীয়রা জানান, ঢাকা মহানগর উত্তর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এস এম মান্নান কচির লোকজনের ওপর হামলার ঘটনা ঘটেছে। ১০ নম্বর সড়কে বিহারীদের একটি অফিস থেকে বের হওয়ার পরপরই এস এম মান্নান কচির অনুসারী সাদাকাত খান ফাক্কুর ওপর অস্ত্রশস্ত্র নিয়ে অর্ধ শতাধিক যুবক এই হামলা চালায়। এসময় ফাক্কুর সঙ্গে থাকা লোকজন এগিয়ে গেলে তারাও হামলার শিকার হয়। এতে গুরুতর আহত হন মো. শাওকাত খান, মো. ইমরান খান, মো. ইকবাল, মো. রাজু ও সোহেল।

[৪] সাদাকাত খান ফাক্কু অভিযোগ করেছেন, স্থানীয় কাউন্সিলর জহিরুল ইসলাম মানিকের লোকজন এই হামলা চালায়। যদিও কাউন্সিলর মানিক তা অস্বীকার করে বলেছেন, ফাক্কুর লোকজন ত্রাণ লুট করেছে বলে হামলা হয়েছে। মানিক জানান, তার অনুসারী মোস্তাকের বাসা থেকে ত্রাণ লুট করতে যায় ফাক্কুর লোকজন। এসময় এই হামলার ঘটনা ঘটে।

[৫] অপরদিকে অভিযোগটি সম্পূর্ণ মিথ্যা দাবি করে সাদাকাত খান ফাক্কু জানান, গত সিটি নির্বাচনে তিনি কাউন্সিলর প্রার্থী ছিলেন। মানিক তার প্রতিদ্বন্দ্বি ছিলেন। স্বতন্ত্র প্রার্থী হলেও প্রকাশ্যে ফাক্কু আওয়ামী লীগের মেয়র প্রার্থীর পক্ষে কাজ করেছেন। সম্প্রতি আওয়ামী লীগ নেতা এস এম মান্নান কচি সহযোগিতায় বিভিন্ন এলাকায় ত্রাণ বিতরণ করেছেন। কাউন্সিলর মানিকের সহযোগিতা না পেলেও পাঁচ নম্বর ওয়ার্ডের কাউন্সিলর আব্দুর রউফ নান্নুর সহযোগিতা পেয়েছেন বিহারীরা। নির্বাচনের বিরোধ ও সাম্প্রতিক এসব ঘটনায় ক্ষুব্ধ হয়ে কাউন্সিলর মানিকের নির্দেশে হামলা চালানো হয়েছে বলে অভিযোগ করেন তিনি।

[৬] পল্লবী থানার ওসি রফিকুল ইসলাম বলেন, পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে রয়েছে। এখনও কোনো লিখিত অভিযোগ পাইনি। অভিযোগ পেলে ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে বলে জানান তিনি।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত