প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

[১] স্বাস্থ্যবিধি মেনে আয়ের প্রধান উৎস প্রিমিয়ার লিগ শুরুর দাবি ক্রিকেটারদের

নিজস্ব প্রতিবেদক : [২] বাংলাদেশের ক্রিকেটাররা খেলায় ফিরতে অধীর আগ্রহে অপেক্ষা করছেন। দেশের অধিকাংশ ক্রিকেটারদের উপার্জনের প্রধান উৎস ঢাকা প্রিমিয়ার লিগ (ডিপিএল)। ক্রিকেটাররা মনে করেন কয়েক মাস বিলম্ব হলে প্রিমিয়ার লিগের এবারের আসর স্থায়ীভাবে বাতিল হয়ে যেতে পারে।

[৩] বাংলাদেশ সরকার লকডাউন প্রত্যাহার করে নিয়েছে এবং স্বাস্থ্যবিধি মেনে অফিস খোলার অনুমতি দিয়েছে। অধিকাংশ ক্রিকেটার মনে করেন স্বাস্থ্যবিধি মেনে ক্রিকেটও শুরু করা সম্ভব। তবে এই ব্যাপারে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নিতে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের (বিসিবি) দিকে তাকিয়ে রয়েছেন ক্রিকেটাররা।

[৪] টপ অর্ডার ব্যাটসম্যান শামসুর রহমান বলেছেন, খুব শিগগিরই ক্রিকেট পুনরায় চালু করা ভাল কিনা বিসিবি আরও ভাল বলতে পারবে। এমন পরিস্থিতিতে স্বাস্থ্য নির্দেশিকা কঠোরভাবে অনুসরণ করা উচিত। ক্রিকেট পুনরায় চালু করার পরিস্থিতি রয়েছে কিনা তা আমি জানি না। তবে একজন ক্রিকেটার হিসাবে আমি চাই যত তাড়াতাড়ি সম্ভব ক্রিকেট আবার শুরু হোক।

[৫] করোনার বিস্তারের কারণে মার্চের মাঝামাঝি দেশের ঘরোয়া ক্রিকেট অনির্দিষ্টকালের জন্য স্থগিত করা হয়। স্থগিতের আগে প্রিমিয়ার লিগের একটি রাউন্ড অনুষ্ঠিত হয়েছিল। আগস্টের মধ্যে ডিপিএলের এবারের আসর অনুষ্ঠিত না হলে তা পুরোপুরি বাতিলের সম্ভাবনা রয়েছে।

[৬] জাতীয় দলের ওপেনার ইমরুল কায়েসের দাবি যত দ্রæত সম্ভব দেশের ক্রিকেট আবারও চালু করা হোক। তিনি বলেছেন, ক্রিকেটটি আবার শুরু করা উচিত। এটার একটা সুবিধা রয়েছে মাঠে দর্শক আসবে না এবং তারা জনসমাগম করবে না। আমি মনে করি আমাদের স্বাস্থ্যবিধি মানা উচিত এবং আমাদের নিরাপত্তা নিশ্চিত করা উচিত।

[৭] ইমরুলের সুরেই কথা বলেছেন পেসার রুবেল হোসেন। তিনি বলেন, বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা নিজেই বলেছে যে করোনাভাইরাস খুব শিগগিরই যাবে না এবং আমাদের এটির সঙ্গে মানিয়ে নিয়েই জীবনযাপন করতে হবে। সরকারও স্বাস্থ্যবিধির উপর জোর দিয়েছে। তাই আমি বিসিবিকে অনুরোধ করব আমাদের জন্য একটি গাইডলাইন তৈরি করে ক্রিকেট পুনরায় চালু করতে।- সূত্র : ক্রিকফ্রেঞ্জি

সর্বাধিক পঠিত