প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

[১] বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে টাকা হাতিয়ে নেয়া উপ-সচিব পরিচয়দানকারী প্রতারক গ্রেপ্তার

সুজন কৈরী : [২] গ্রেপ্তার ওই প্রতারক হলেন- মো. গোলাম মোস্তফা (৩৮)। তিনি নিজেকে ২৪ তম বিসিএস প্রশাসন ক্যাডারের একজন কর্মকর্তা ও সচিবালয়ে কর্মরত বলে পরিচয় দিতেন।

[৩] রোববার রাজধানীর উত্তরা এলাকায় অভিযান চালিয়ে তাকে গ্রেপ্তার করে পুলিশের অপরাধ তদন্ত বিভাগের (সিআইডি) সিরিয়াস ক্রাইম স্কোয়াড।

[৪] গ্রেপ্তার গোলাম মোস্তফা এ পর্যন্ত বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে ৫ জন ভুক্তভোগীর কাছ থেকে প্রায় ৭৫ লাখ টাকা প্রতারণার মাধ্যমে হাতিয়ে নিয়েছেন বলে জানিয়েছে সিআইডি।

[৫] সংস্থাটি জানায়, গ্রেপ্তার প্রতারকের গ্রামের বাড়ি কুড়িগ্রামে। বি এ পাশ গোলাম মোস্তফার দুই সন্তানের জনক। আগে চাকরি করলেও একপর্যায়ে ২০১৮ সালে চাকরি ছেড়ে দিয়ে প্রতারণা শুরু করেন তিনি।

[৬] সিআইডির সিরিয়াস ক্রাইম স্কোয়াডের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার রাজীব ফরহান বলেন, গোলাম মোস্তফা কখনো নিজেকে ম্যাজিস্ট্রেট আবার কখনো উপ-সচিব অথবা সচিবালয়ের পদস্থ কর্মকর্তা পরিচয় দিয়ে প্রতারণা করতেন। তার মূল টার্গেট ছিল বিত্তবান পরিবারের অবিবাহিত ও চাকরীজীবি কন্যা। ঢাকা শহরের কিছু অসাধু ঘটকের কাছ থেকে অবিবাহিত মেয়েদের বায়োডাটা টাকার বিনিময়ে সংগ্রহ করে তাদের সাথে ফোনে যোগাযোগ শুরু করতেন। ভিকটিমের পরিবারের সদস্য বিশেষ করে পাত্রীর মায়ের সঙ্গে সখ্যতা গড়ে বিশ্বস্ততা অর্জন করতেন। এরপর বিভিন্ন সময়ে পিএইচডির জন্য বিদেশ যাওয়া, দুদককে ঘুষ দেয়া, বদলী বাতিল করণসহ নানা অজুহাতে বিয়ের প্রার্থীদের কাছ থেকে টাকা ধার নিতেন। পরে টাকা ফেরৎ না দিয়ে যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন করে দিতেন।

[৭] গত ১১ ফেব্রুয়ারি প্রতারণার শিকার বেসরকারী ব্যাংকে কর্মরত একজন ভুক্তভোগী বাদি হয়ে রাজধানীর ক্যান্টনমেন্ট থানায় গেলাম মোস্তফার বিরুদ্ধে মামলা করেন। মামলাটি তদন্তকালে সিআইডির সিরিয়াস ক্রাইম স্কোয়াড উত্তরা ১১ নম্বর সেক্টরের একটি এপার্টমেন্ট থেকে তাকে গ্রেপ্তার করে।

[৮] রাজীব ফারহান বলেন, সর্বশেষ ঈদের আগেও রাজধানীর কলাবাগানের একজন ভুক্তভোগীর কাছ থেকে প্রতারণার মাধ্যমে টাকা নিয়েছেন গ্রেপ্তার গোলাম মোস্তফা।

সর্বাধিক পঠিত