প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

[১] কোটালীপাড়ায় কুকুরের প্রতি এক সাংবাদিকের ভালবাসা

প্রমথ রঞ্জন সরকার ও সমীর রায়: [২] করোনাভাইরাসের কারণে লকডাউন করে দেওয়া হয়েছে গোটা এলাকা। আর এই লকডাউনে বন্ধ রয়েছে বিভিন্ন বাজারের চায়ের দোকান ও খাবার হোটেল। এই চায়ের দোকান ও খাবার বন্ধ থাকায় বিভিন্ন বাজারের বেওয়ারিশ কুকুরগুলো চরম খাদ্য সংকটে পড়ে।

[৩] এমনই ১০টি বেওয়ারিশ কুকুরকে আপন করে নিয়েছে গোপালগঞ্জের কোটালীপাড়া উপজেলার কলাবাড়ি ইউনিয়নের হিজলবাড়ি গ্রামের সুশান্ত বর্ণিক।

[৪] সুশান্ত বর্ণিক দৈনিক ভোরের ডাক পত্রিকার কোটালীপাড়া উপজেলা প্রতিনিধি। তিনি প্রায় ২মাস ধরেস এই ১০টি কুকুরকে খাওয়াচ্ছেন। কুকুরগুলো এখন আর বেওয়ারিশ নেই। সুশান্ত বর্ণিক বাড়িতে গেলেই এই কুকুরগুলো তার চারিদিক দিয়ে ঘোরাফেরা করে। সুশান্ত বর্ণিকও এদের দেখভাল করেন। এ যেন এক ভিন্ন ধরণের ভালবাসা।

[৫] সুশান্ত বর্ণিক বলেন, এপ্রিলের শুরুর দিকে শেখ রাসেল কলেজ মাঠে আমি এই ১০টি কুকুরকে শুয়ে থাকতে দেখি। এভাবে ২-৩দিন ধরে কুকুরগুলো একই স্থানে একই ভাবে দেখতে পাই। পরবর্তীতে আমি কাছে গিয়ে অনুধাবন করি যে কুকুরগুলো ক্ষুধার্ত। তারপর থেকে আমি প্রতিদিনই এই কুকুরগুলোকে খাবার দিয়ে যাচ্ছি। এখন ওরা আমাকে দেখলেই খাবারের জন্য ছুটে আসে। আমার সাধ্যমতো ওদের ভাত, রুটি, বিস্কুটসহ নানা ধরণের খাবার দেই। আমার যা আর্থিক অবস্থা তাতে হয়তো বা ওদেরকে বেশী দিন খাওয়াতে পারবো না। হয়তো বা ওরা একদিন আমাকে ছেড়ে চলে যাবে। তবে ওদের প্রতি আমার ভালবাসা রয়ে যাবে।

[৬] কলাবাড়ি ইউনিয়নের চেয়ারম্যান মাইকেল ওঝা বলেন, এই মহামারি করোনার মধ্যে সুশান্ত বর্ণিক কুকুরের প্রতি যে ভালবাসা দেখিয়েছে তাহা সত্যিই প্রশাংসার দাবি রাখে। এই কুকুরগুলোকে খাদ্য দিতে সাংবাদিক সুশান্ত বর্ণিকের কোন প্রকার সমস্যা দেখা দিলে আমি আমার ব্যক্তিগত পক্ষ থেকে তাকে সহযোগিতা করবো। সম্পাদনা: জেরিন আহমেদ

সর্বাধিক পঠিত