প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

[১] ৫ মে পূর্ব লাদাখে চীন ও ভারতীয় সেনাদের মধ্যে লোহার রড, লাঠি নিয়ে সংঘর্ষ হয়, পাথর ছোড়াও হয়েছিল

ইকবাল খান: [২] দুই দেশের ২৫০ সেনাসদস্য অংশ নিয়েছিলো ।

[৩] সম্প্রতি আবারো উত্তেজনা বেড়েছে।

[৪] ওই সংঘর্ষের পর পূর্ব লাদাখে দুই দেশের প্রকৃত সীমান্তরেখার কয়েকটি অঞ্চলে ভারত ও চীন বড় ধরণের সেনা সমাবেশ করছে। সূত্র: এনডিটিভি।

[৫] শীর্ষস্থানীয় সেনাসূত্রের বরাত দিয়ে এনডিটিভি বলছে, ভারত প্যানগং সো ও গালওয়ান উপত্যকায় শক্তি বাড়িয়েছে সেনাবাহিনীর। ওই দুই অঞ্চলে ২,০০০ থেকে ২,৫০০ চীনের সেনা মোতায়েন করা হয়েছে। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক শীর্ষ সেনা কর্মকর্তা এনডিটিভিকে জানিয়েছেন, ভারতীয় সেনার শক্তি এই অঞ্চলে যথেষ্ট বেশি রয়েছে।

[৬] ভারত-চীন সীমান্তের বেশ ক’টি স্থানে সীমান্ত অনুপ্রবেশের অভিযোগ রয়েছে চীনের সেনার বিরুদ্ধে যা উদ্বেগ বাড়িয়েছে ভারতীয় সেনার।

[৭] এ বিষয়ে অবসরপ্রাপ্ত নর্দান আর্মি কমান্ডার লেফটেন্যান্ট জেনারেল ডিএস হুডা জানাচ্ছেন, বিষয়টা গুরুতর। এটা কোনও সাধারণ সীমা লংঘন নয়। তাঁর মতে গালওয়ানের মতো এলাকায় সীমান্ত অতিক্রম উদ্বেগের বিষয়। কেননা ওই সীমান্তরেখায় কোনও সমস্যা নেই।

[৮] কৌশলগত বিষয়ের বিশেষজ্ঞ অশোক কে কান্ঠা লেফটেন্যান্ট জেনারেল ডিএস হুডার মন্তব্যের সঙ্গে সহমত পোষণ করে জানিয়েছেন, পরিস্থিতি যথেষ্ট অস্বস্তির। বেশ কিছু জায়গায় চীনের সেনা সীমান্তরেখা লংঘন করেছে। যা উদ্বেগ বাড়াচ্ছে।

[৯] গত দু’সপ্তাহে গালওয়ান উপত্যকায় শক্তি বাড়িয়েছে চীন। ১০০টি শিবির তৈরি করেছে তারা। বাঙ্কার নির্মাণের ভারী উপকরণও মজুত করা হয়েছে সেখানে।

[১০] সূত্রানুসারে, ভারতীয় সেনা ‘আক্রমণাত্মক টহলদারি’ শুরু করেছে ডেমচক ও দৌলত বাগ ওল্ডি সহ বহু স্থানে।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত