প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

[১] করোনা ভাইরাস নিষেধাজ্ঞা তুলে দেয়ার আহ্বান জার্মানির যৌনকর্মীদের

লিহান লিমা: [২] এক খোলা চিঠিতে জার্মানি ফেডারেল এসোসিয়েশন অব সেক্স সার্ভিস (বিএসডি) করোনা ভাইরাসের কারণে যৌনকর্মী ও যৌনপল্লীর ওপর নিষেধাজ্ঞা তুলে নিতে বলেছে।ডয়েচে ভেলে।

[৩] যৌনকর্মীরা বলছেন, তারা নিজেরাই নিজেদের স্বাস্থ্য সুরক্ষা ব্যবস্থা গ্রহণ করবেন। সেই সঙ্গে ‘যৌনপল্লীকে করোনা সংক্রমণের আখড়া’ মন্তব্যকে আক্রমণাত্মক ও ভুয়া বলে মন্তব্য করেন তারা।

[৪] বিএসডি জানায়, যৌনকর্মীদের পুনরায় আয়ের সংস্থান করা ও ক্রেতাদের সেবা করার সুযোগ দেয়া সহ এই পেশার সঙ্গে যারা জড়িত তাদের কাজ চালু হওয়া প্রয়োজন। এই চিঠিতে যৌনকর্মীদের নিজস্ব স্বাস্থ্যসুরক্ষা ব্যবস্থার কথা জানিয়ে বলা হয়, সংক্রমণ কমাতে যথাযথ ব্যবস্থা নেয়া হবে।

[৫] তারা আরো বলেন, ছোট যৌনপল্লীগুলোতে ১০জনের বেশি যৌনকর্মী এক সঙ্গে অবস্থান করবেন না। সেই সঙ্গে ব্যক্তিগত বাড়ি ও অ্যাপার্টমেন্টে যৌনকর্মের অনুমতি দিতে হবে। সামাজিক দুরুত্ব বজায় রেখে খোলা দরকার বার, সিনেমা হল ও ক্লাব। ক্লায়েন্টের সঙ্গে দেখা করার সময় যৌনকর্মীরা মাস্ক পরবেন ও রুম ডিজইনফেক্টেড দিয়ে পরিষ্কার করা হবে। সর্বোচ্চ স্বাস্থ্য সুরক্ষা বজায় রাখা হবে।

[৬] মধ্য মার্চে করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ কমাতে জার্মানিজুড়ে লকডাউন আরোপ করা হয়। সংক্রমণের মাত্রা নিয়ন্ত্রণে আসলে দেশটি রেস্টুরেন্ট, সুইমিং পুল ও পার্লার খুলে দেয়। তবে এখন পর্যন্ত যৌনকর্ম ও যৌনপল্লীর ওপর নিষেধাজ্ঞা আরোপ রয়েছে।
[৭] গত সপ্তাহে জার্মানির পার্লামেন্টের ১৬ জন এমপি যৌথভাবে লেখা এক চিঠিতে জার্মানিতে চিরতরে যৌনপল্লী বন্ধের আহŸান জানান। এই আইনপ্রণেতারা বলেন, ‘এটা বুঝতে হবে যৌনকর্র্মের মতো পেশা মহামারী দ্রæত ছড়াচ্ছে, এটি সামাজিক দুরুত্বের সঙ্গে সঙ্গতিপূর্ণ নয়।’

[৮] জার্মানিতে পেশা হিসেবে যৌনকর্ম আইনসিদ্ধ। তবে পেশার ধরণ নিয়ে বিভিন্ন রাজ্যে বিভিন্ন নিয়ম রয়েছে। সরকারী হিসেব মতে জার্র্মানিতে নিবন্ধনকৃত যৌনকর্মীর সংখ্যা ৩৩ হাজার। তবে বেসরকারী হিসেব বলছে এটি প্রায় ৪ লাখের মতো। ২০০২ সালে যৌনকর্মীদের সুরক্ষার আওতায় আনতে এই পেশাকে বৈধতা দেয়া হয়।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত