প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

[১]নভেল করোনার অস্তিত্বের কথা জানতামই না: উহানের ল্যাব পরিচালক

ডেস্ক রিপোর্ট : [২] নভেল করোনাভাইরাস ছড়িয়ে পড়ার আগে ভাইরাসটির বিষয়ে কিছুই জানতো না উহানের ভাইরোলজি ইন্সটিটিউট।

[৩] উহান শহরটিতে প্রথম করোনা রোগী শনাক্তের কয়েকদিন পর একটি ক্লিনিকাল নমুনা পেয়ে ভাইরাসটি নিয়ে গবেষণা শুরু করে সেই প্রতিষ্ঠান।

[৪] শনিবার চীনের রাষ্ট্রীয় গণমাধ্যম সিজিটিএনে উহানের ভাইরোলজি ইন্সটিটিউট বা ল্যাবের পরিচালক ওয়াং ইয়ানয়ি এ দাবি করেন বলে প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে সাউথ চায়না মর্নিং পোস্ট।

[৫] ওয়াং ইয়ানয়ি বলেন, কভিড-১৯ এর প্রাদুর্ভাব উহানে ছড়িয়ে পড়ার আগে এই ভাইরাসের বিষয়ে আমাদের কোনো ধারণাই ছিল না। আমরা কখনও এমন করোনাভাইরাসের মুখোমুখি হইনি। কেবল ৩০ ডিসেম্বরের পরই মৃতের শরীর থেকে নমুনা নিয়ে গবেষণাগারে প্রথমবারের মতো সংরক্ষণ করা হয়।

[৬] এরপর তিনি প্রশ্ন করেন, যে ভাইরাসের অস্তিত্বের কথাই জানতো না উহান ল্যাব, সেটা কী করে সেখান থেকে ছড়াতে পারে?

তিনি দাবি করেন, এ ভাইরাসের উৎপত্তি উহান ল্যাবে নয়, এটা একেবারে পরিস্কার করে বলতে চাই। ল্যাব থেকে ভাইরাসটি ছড়িয়েছে এ অভিযোগ ভিত্তিহীন।

[৭] এরপর বাদুড় থেকে পাওয়া দুটি ভাইরাস নিয়ে উহানের ল্যাবে গবেষণার বিষয়টি পরিস্কার করেন ওয়াং ইয়ানয়ি।

তিনি বলেন, উহানের ল্যাবে উৎপন্ন বাদুড় থেকে আসা দুটি করোনাভাইরাসের সংমিশ্রণে কভিড -১৯ এর উদ্ভব হয়েছে এমন অনুমান ভিত্তিহীন। তবে ভাইরাস দুটির মধ্যে একটির সঙ্গে সার্স-সিওভি-২ (কভিড -১৯) এর ৯৬.২ শতাংশ মিল রয়েছে। কিন্তু তা কভিড-১৯ নয়।

[৮] ইয়ানয়ি বলেন, অপেশাদারি দৃষ্টিকোণ থেকে দেখলে এ মিলকে অনেক বেশি বলে মনে করা হলেও বিজ্ঞান তা উড়িয়ে দেয়। কারণ প্রকৃতিতে কোনো একটি ভাইরাসের স্বাভাবিকভাবে বিকশিত ও পরিবর্তিত হয়ে কভিড-১৯ এ রূপান্তরিত হতে দীর্ঘ সময়ের প্রয়োজন।

[৯] উল্লেখ্য, উহানের সেই ল্যাব থেকেই প্রাণঘাতী নভেল করোনাভাইরাস ছড়িয়েছে বলে প্রথম থেকেই অভিযোগ করে আসছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। তবে ট্রাম্পের এমন অভিযোগের পক্ষে যায়নি বিশ্বের অধিকাংশ বিজ্ঞানী। অনেক বিজ্ঞানীর অভিমত, নভেল করোনাভাইরাসের উৎপত্তি বন্য প্রাণী থেকে হয়েছে। এটি মানব সৃষ্ট নয়। যুগান্তর

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত