প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

[১] করোনায় আমিরাতে হুমকির মুখে বাংলাদেশি গার্মেন্টস পোশাক ব্যবসা

ইউএই প্রতিনিধিঃ [২] সংযুক্ত আরব আমিরাতে টানা লকডাউনের কারণে লোকসান আতঙ্কে আজমানে বাংলাদেশি গার্মেন্টস কাপড়ের পাইকারী ব্যবসায়ীরা।দেশটির সাথে বাংলাদেশের জাহাজ ও বিমান চলাচল বন্ধ থাকায় দেশ থেকে কোন কাপড় আনতে পারছেন না। অবস্থার কারণে কমে গেছে কমে গেছে বিশ্বের নানা দেশ থেকে ক্রেতাদের আনাগোনা ও পণ্যের অর্ডার। ফলে বিপুল পরিমাণ বৈদেশিক মুদ্রা থেকে বঞ্চিত হবে বাংলাদেশ।

[৩] বিশ্বব্যাপী মহামারি করোনা ভাইরাসের কারণে গেল ২৬ মার্চ হতে সংযুক্ত আরব আমিরাতে কিছু কিছু এলাকা লকডাউন ঘোষণা করা হয়। তার আগে ১৮ মার্চ থেকে দেশের নৌ বন্দর ও বিমান বন্দরের সকল যানবাহন চলাচল বন্ধ করে দেয় দেশটির সরকার। ফলে বিপাকে পরে প্রবাসী বাংলাদেশি ব্যাবসায়ীরা। ব্যবসা না থাকায় কর্মচারীদের বেতন, দোকান ভাড়া, বিদ্যুৎ দিতে হিমশিম খেতে হচ্ছে ক্ষুদ্র ব্যবসায়ীদের।

[৪] ব্যবসায়ীদের সাথে আলাপকালে জানা যায়, তারা মূলত, দেশীয় জামা কাপড় ইরান ,আফ্রিকা, ইথোপিয়া, সৌদি আরব, ওমান, জর্ডানসহ আফ্রিকার দেশগুলোতে কাস্টমারের কাছে রপ্তানি করে থাকেন।

[৫] বিমান চলাচল বন্ধ থাকায় ক্রেতারা আসতে পারছে না। বিক্রয় হার শতকরা ৫% নেমে এসেছে। এভাবে চলতে থাকলে অচিরেই এই শিল্প হুমকির মুখে পড়বে বলে তাদের দাবী।

[৬] ব্যবসায়ীরা আরও জানান, লগডাউনের কারণে পোর্টে বর্তমান মৌসুমের বেশ কিছু অর্ডার আটকে আছে। ঠিক সময়ে অর্ডারগুলো না আসলে বড় ধরনের লোকসান এর সম্মুখীন হতে হবে।

[৭] আজমান বাঙালি মার্কেটে ছোট বড় সব মিলিয়ে পাইকারি কাপড়ের দোকান আছে প্রায় ৮ শতাদিক । দেশের সাথে আমিরাতের সরাসরি শিপের কোন যোগাযোগ না থাকায় সিঙ্গাপুর হয়ে মালামাল আনতে অনেক টাকা ভাড়া ও সময় ব্যয় করতে হয়। তাই দু’দেশের সরাসরি শিপ চালুর দাবীও জানান তারা। সম্পাদনা: জেরিন আহমেদ

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত