প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

বসনিয়াকে রক্তের নদীতে ভাসানোর দিনও পৃথিবীতে শত কোটি মুসলমান ছিলো

আক্তারুজ্জামান :  যেদিন বসনিয়াকে রক্তের নদীতে ভাসিয়ে দেওয়া হয়েছিলো, সেদিনও পৃথিবীতে শ’কোটি মুসলমান ছিলো।

যেদিন ফিলিস্তিনেরদের ইয়াসিনের মাটি লাল হয়েছিলো, সেদিনও পৃথিবীতে কয়েক হালি মুসলিম শাসক ছিলো।

যেদিন আরাকানের রোহিঙ্গাদের কচুকাটা করা হচ্ছিলো, সেদিনও মক্কা-মদিনায় তাওয়াফ হচ্ছিলো।

যেদিন আফগানিস্তানের মাটিতে সোভিয়েত লাল কুকুরের হামলা হয়েছিলো, সেদিন পাশেই ইরাক-ইরান-পাকিস্তান ছিলো।

যেদিন কাশ্মীরের এক গ্রামেই তিনশ বোনের ইজ্জত লুন্ঠন হচ্ছিলো, সেদিন কোটি মুসলিম পাশের রাজ্যেই ছিলো।

যেদিন গুজরাটে তলোয়ারের আঘাতো রক্ত গঙ্গা বইছিলো,সেদিনও ভারতে ২৪ কোটি মুসলিম ছিলো।

যেদিন সিরিয়ার কোটি মুসলিম ন্যাটো আর আসাদে নিষ্পেষিত হচ্ছিলো তখন আশেপাশে তুরস্ক, ইরান কত দেশ ছিলো।

যেদিন রুয়ান্ডার সাদা মনের কালো মানুষগুলো গুম হচ্ছিলো জীবন্ত, তখন পুরো পৃথিবী জুড়ে কত মুসলিম মনিষী ছিলো।

যেদিন সোমালিয়ার ধর্মপ্রাণ হৃদয় গুলো স্তব্ধ হচ্ছিলো, সেদিনও কি নিশ্চিন্তে আমাদের ঘুম এসেছিলো।

যেদিন চেচনিয়ার বরফ ঢাকা পাহাড়ে আর্তনাদের প্রতিধ্বনি হচ্ছিলো, তখনও আমরা নিজেদের এক উম্মাহ দাবী করা শত কোটি মুসলিম ছিলো।

যেদিন উইঘুরের লাখো মুসলিমের আর্তনাদ চার দেয়ালে আবদ্ধ, সেদিনও দিব্যি চীনকে ভালবাসা উপহার দেওয়া শত মুসলিম ছিলো।

শুধু……
ছিলো না প্রতিরোধের ফরজকে ফরজ হিসেবে মনে নেয়ার মানসিকতা,

ছিলো না এক উম্মাহ এক দেহকে বাস্তব জীবনে প্রতিফলনের মানসিকতা,

ছিলো না ইজ্জত হারিয়ে আর্তনাদ করা বোনের জন্য গাইরতের মানসিকতা,

ছিলো না মুহাম্মদ বিন কাসিমের মতো প্রতিশোধের স্পৃহার মানসিকতা,

ছিলো না সে পথে গিয়ে ঈমানের হাওয়ায় বলীয়ান হয়ে জান্নাতে যাওয়ার মানসিকতা

তবু..
স্বপ্ন দেখে যাই,
স্বপ্ন বলে যাই,
একদিন এই উম্মাহর হবে জাগরণ,
হয়তো হবো গাজী নয়তো শহীদী মরণ!

ফেসবুক থেকে সংগৃহীত।

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত