প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

[১] ইতিকাফের ফজিলাত; আল্লাহর নৈকট্য লাভ ও গুনাহ মাফের সুবর্ণ সুযোগ

ইসমাঈল আযহার: [২] ইতিকাফ আল্লাহর নৈকট্য লাভের সহজ উপায়। গুনাহ মাফের সুবর্ণ সুযোগ। মালিকের সাথে গোলামের নিবিড় সম্পর্ক গড়ার সেতু বন্ধন। ইতিকাফকারী যেন গোলামের ভুমিকায় মালিকের দুয়ারের ভিখারী।

[৩] ইতিকাফে লাইলকতুল কদর ভাগ্যে জুটবার অপার সম্ভাবনা। যা হাজার মাসের চেয়ে শ্রেষ্ঠ। রাসুল সা. এরশাদ করেন, তোমরা রমাযানের শেষ দশকের বিজোড় রাত্রিতে লাইলাতুল কদর অনুসন্ধান কর। (বোখারী শরীফ)। অন্য হাদিসে বর্ণিত হয়েছে, যে ব্যক্তি আল্লাহ তায়ালার সন্তুষ্টির উদ্দেশ্যে একদিন ইতিকাফ করবে আল্লাহ তায়ালা তার এবং জাহান্নামের মাঝে তিন খন্দক দূরত্ব সৃষ্টি করে দিবেন। অর্থাৎ আসমান ও জমিনের দূরত্ব থেকে অধিক দূরত্ব সৃষ্টি করে দিবেন। (শোয়াবুল ঈমান,হাদিস: ৩৯৬৫)

[৪] রমযানের শেষ দশকের ইতিকাফ। এটি সুন্নাতে মুয়াক্কাদায়ে কিফায়াহ। অর্থাৎ মহল্লার জামে মসজিদে কয়েকজন ইতিকাফ করলেই তা সবার পক্ষ থেকে আদায় হয়ে যাবে। না হয় মহল্লার সকলেই গুনাহগার হবে। ২০ রমযান সূর্যাস্তের পূর্ব থেকে শাওয়ালের চাঁদ ওঠা পর্যন্ত মসজিদে অবস্থান করবে।

[৫] মান্নতের ইতিকাফ ওয়াজিব। যেমন কেউ বলল যে, আমার অমুক কাজ সমাধান হলে আমি এতদিন ই’তিকাফ করব অথবা কোনো কাজের শর্ত উল্লেখ না করেই বলল, আমি একদিন অবশ্যই ইতিকাফ করব। যতদিন শর্ত করা হবে ততদিন ইতিকাফ করা ওয়াজিব। ওয়াজিব ইতিকাফের জন্য রোজা রাখা শর্ত। সুন্নাত ইতিকাফ ভঙ্গ করলে তা পালন করাও ওয়াজিব হয়ে যায়।

[৬] সাধারণভাবে যে কোনো সময় ইতিকাফ করাকে নফল ইতিকাফ  বলে। এর জন্য কোনো দিন কিংবা সময়ের পরিমাপ নেই। অল্প সময়ের জন্যও ই’তিকাফ করা যেতে পারে। এ জন্য মসজিদে প্রবেশের পূর্বে ইতিকাফের নিয়ত করে প্রবেশ করা ভালো।

[৭] মহিলারা সাধারণত ঘরের যেখানে নামাজ পড়ে তা ইতিকাফের জন্য নির্দিষ্ট করে দশ দিন বা কম সময়ের জন্য ইতিকাফের নিয়ত করে ইবাদত করবে। শরয়ী কোনও ওজর ছাড়া সেখান থেকে বের হবে না। ইতিকাফ অবস্থায় যদি মহিলাদের ঋতুস্রাব শুরু হয় তাহলে ইতিকাফ ভেঙে যাবে।

[৮] ইতিকাফ অবস্থায় বেশি বেশি আল্লাহর জিকির করা। নফল নামাজ আদায় করা। কুরআন তেলাওয়াত করা। দ্বীনি ওয়াজ-নসিহত শোনা । উমরী কাজা আদায় করা। ধর্মীয় গ্রন্থাবলী পাঠ করা।

[৯] ইতিকাফ অবস্থায় শরয়ী প্রয়োজন ছাড়া মসজিদের বাইরে না যাওয়া। দুনিয়াবি আলোচনায় মগ্ন না হওয়া। ক্রয় বিক্রয় না করা। ব্যবসা-বাণিজ্যের হিসাব-নিকাশ না করা। স্ত্রী সহবাস না করা। সাধারন গোসল না করা। এতে ইতিকাফ ভেঙে যায়।

 

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বাধিক পঠিত