প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

[১] করোনা জয়ের গল্প শোনালেন ডা. রউফ (ভিডিও)

টিভিএনএ রিপোর্ট: [২] প্রাণঘাতী করোনাভাইরাস (কোভিড-১৯) থেকে সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন অনেকেই। মৃতের হার এখনও সর্বোচ্চ ৪ শতাংশ। তারপরেও সবার ভেতরে এক ধরনের আতঙ্ক বিরাজ করছে। কিন্তু যারা সুস্থ হয়েছেন তাদের প্রত্যেকেরই মতামত আক্রান্ত হওয়ার পর যতটা সম্ভব মানসিকভাবে শক্ত থাকতে হবে। যিনি যত বেশি শক্ত হবেন তত তারাতারি সুস্থ হয়ে উঠবেন।

[৩] শহীদ সোহরাওয়ার্দী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের সহকারী অধ্যাপক ডা. মোস্তফা কামাল রউফ। যিনি করোনায় আক্রান্ত হওয়ার পর ঘরে থেকে নিজে নিজেই সুস্থ হয়েছেন। তার সেই অভিজ্ঞতার কথা শেয়ার করেছেন। হাসপাতালে ওয়ার্ডে ডিউটি করা বা রোগী দেখতে গিয়েই তিনি আক্রান্ত হয়েছেন বলে মনে করেন।

[৪] তিনি বলেন, করোনা আক্রান্তের ধরন বুঝে তা তিন ভাগে ভাগ করা হয়েছে। মৃদু করোনা, মাঝারি করোনা ও পুরোপুরি আক্রান্ত। তবে মৃদু করোনায় ৮০ শতাংশ মানুষ আক্রান্ত হচ্ছে। যার চিকিৎসা করাতে হাসপালে যাবার দরকার নেই।

[৫] ডা. রউফ বলেন, আমি যেহেতু মৃদু করোনায় আক্রান্ত ছিলাম তাই ঘরে সব সময় ঘন ঘন গরম পানি খেয়েছি। গরম পানিতে কিছু লবন দিয়ে দিনে তিন থেকে চারবার গারগেলিং করেছি। আর যখনই কাশি এসেছে প্রচুর পরিমাণ গরম পানির বাষ্প নিয়েছি। এছাড়া ওষুধ হিসেবে ভিটামিন সি ও জিংক খেয়েছি। জ্বর ও গলা ব্যাথার প্যারাসিটামল ও কাশির জন্য মন্টিলোকাস বা ফ্যাক্সো-ফেনাডিন জাতীয় ওষুধ খেয়েছি।

[৬] তিনি বলেন, যেহেতু করোনাকে প্রতিহত করতে প্রচুর রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা থাকতে হবে। এজন্য ভিটামিন সি জাতীয় খাবার বেশি খেয়েছি। সেই সাথে মাছ মাংস, বিশেষ করে দুধ ও ডিম খেয়েছি প্রচুর পরিমাণে।

[৭] তিনি বলেন, করোনায় আক্রান্ত মানেই কিন্তু মৃত্যু নয়। আক্রান্ত হওয়ার পর মানসিকভাবে খুবই স্বাভাবিক থাকতে হবে। বিশেষ করে ধর্মীয় অনুশাসনগুলো মেনে চললে খুবই উপকার পাওয়া যায়।

[৮] তিনি আরও বলেন, আক্রান্ত হয়ে সুস্থ হওয়ার পর টেস্ট করে বা না করেও অন্তত ১৪ দিন পর যে কেউ স্বাভাবিক কাজে ফিরে যাতে পারে। তবে সুস্থ হওয়ার পর টেস্ট করে তা নিশ্চিত হওয়ায় উত্তম।

 

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত