প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

[১] গোপালগঞ্জে করোনা সংক্রমণ ঠেকাতে কঠোর অবস্থানে জেলা প্রশাসন

আসাদুজ্জামান বাবুল, গোপালগঞ্জ: [২] ফজরের নামাজের পর প্রতিদিনেরমত আজও নিজ নিজ ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের সামনে দাড়িয়ে ক্রেতাদের জন্য অপেক্ষা করছিলেন গোপালগঞ্জের সব ধরনের ব্যবসায়ীরা। কেউ কেউ দোকান খুলে মালামাল বের করে বিক্রীর উদ্দেশ্যে নিজ নিজ দোকান ঘরের সামনে বসে পড়েন।

[৩] আগের থেকে ফোনের মাধ্যমে ক্রেতাদের জানিয়ে রেখেছেন সকাল ৭টার মধ্যে না আসলে কোন মালামাল দেয়া সম্ভব হবেনা। ক্রেতারাও ঠিক সেইভাবে মালামালের চাহিদা আগের থেকেই দিয়ে রাখেন।

[৪]  এমন সময় আইনশৃংখলা বাহিনীর বিশাল একটি টিম নিয়ে হাজির হয়ে যান দুইজন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট। শুরু হয় দৌড়াদৌড়ি।

[৫] দেশে করোনা ভাইরাস শনাক্তের পর গোপালগঞ্জের ব্যবসায়ীরা লকডাউন অমান্য করে সামাজিক দুরত্ব বজায় না রেখে নিজ নিজ পেশাগত দায়িত্ব পালন করে যাচ্ছিলেন দীঘদিন ধরে। স্থানীয় জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে বার বার তাগিদ দেয়ার পরেও তা বন্ধ হয়নি।

[৬] ফলে গত ৩ দিনে গোপালগঞ্জে করোনা ভাইরাসে  এক শিশু ও তার মা সহ ১৩ জন সহ মোট ৬০ জন মানুষ আক্রান্ত হয়েছে পড়ে। বিশেষ করে গত ৩ দিনে ১৩জন মানুষ  আক্রান্ত হওয়ার পর আজ

[৭] মঙ্গলবার ভোর থেকে সামাজিক দুরত্ব বজায় রাখতে ২ জন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটের নেতৃত্বে কঠোর অবস্থানে থেকে মাঠে কাজ করছেন ভ্রাম্যমান আদালত। আদালতের বিচারকবৃন্দরা তাৎক্ষনিক সুধুমাত্র নিত্য প্রযোনীয় মালামালের দোকানপাট ছাড়া সব ধরনের ব্যবসা প্রতিষ্ঠান বন্ধ করে দিয়েছেন। কমিয়ে এনেছেন অটো- ইজিবাইক- রিকসা-ভ্যানের পরিমানও।

[৮] গোপালগঞ্জের জেলা প্রশাসক শাহিদা সুলতানা সাংবাদিকদের বলেছেন, করোনা পরিস্থিতি অনুকুলে আসার আগ পযন্ত আমোদের কাজ অব্যাহত থাকবে। সম্পাদনা: ইস্রাফিল হাওলাদার

 

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত