প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

[১]সেদিন সবাই রুবেলের পিছে জয়ের আনন্দে দৌড়েছিলো আর আমি বাঁচার আনন্দে : তামিম

নিজস্ব প্রতিবেদক : [২] ২০১৫ বিশ্বকাপে ইংল্যান্ডের বিরুদ্ধে ম্যাচের একেবারে শেষদিকে ক্যাচ ফেলেছিলেন তামিম ইকবাল। যদিও রুবেলের বীরত্বে সেদিন ম্যাচটা হাতছাড়া হয়নি। ওই ম্যাচের শেষে তামিম দৌড়েছিলেন হাফ ছেড়ে বাঁচতে। কেননা ম্যাচটা যদি বাংলাদেশ হারতো তবে তার পুরো দায়ভার তামিমের কাঁধেই উঠতো।

[৩] ওই ম্যাচের স্মরণে শুক্রবার রাতে ফেসবুকের নিয়মিত আড্ডায় নিজের তিক্ত অভিজ্ঞতা জানান তামিম। এদিনের আড্ডায় তামিমের সঙ্গে ছিলেন ওই ম্যাচের নায়ক রুবেল হোসেন এবং যার বলে ক্যাচ ছেড়েছিলেন সেই তাসকিন আহমেদ। একটু সময়ের জন্য এসেছিলেন নাসির হোসেনও।

[৪] চার ক্রিকেটারের আড্ডায় কথা প্রসঙ্গে আসে ২০১৫ বিশ্বকাপে অ্যাডিলেডে ইংল্যান্ড ম্যাচটিও। ওই ম্যাচে ক্যাচ হাতছাড়ায় ৩২ কোটি গালি হজম করতে হয়েছিলো তামিমকে। ম্যাচের এক পর্যায়ে ইংল্যান্ডের দরকার ছিল ১৫ বলে ২০ রান। হাতে ২ উইকেট। তাসকিনের বলে ক্যাচ উঠলেও তামিম নিতে পারেননি। পাঁচ বছর আগের স্মৃতি তামিম জানালেন ওকসের ক্যাচটা যখন ছেড়েছিলাম, মনে হচ্ছিল মাটি ফাঁক হয়ে যাক, আমি ঢুকে যাই।

[৫] বিশ্বকাপের ম্যাচে কেন ক্যাচ হাতছাড়া হয় সেটির রহস্য আজও উন্মোচন করতে পারছেন না বাংলাদেশ ওপেনার, বিশ্বকাপে কেন যেন আমার ক্যাচ মিস হবেই। এ বিশ্বকাপেও রোহিত শর্মার ক্যাচ ছুটে গেছে। ২০২৩ বিশ্বকাপ যদি খেলতে পারি ইনশাআল্লাহ পুষিয়ে দেব।

[৬] ক্যাচ হাতছাড়ার তিক্ত অভিজ্ঞতা বললেন তামিম। ঠিক উল্টো ঘটনাও কিন্তু আছে। বাংলাদেশের ফিল্ডারদের সেরা ১০টি ক্যাচের ভিডিও দেখলে সেখানে তামিমেরই চার-পাঁচটা থাকবে।

/এ.জেড

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত