প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

[১]জুন থেকে দেশে করোনা ভ্যাকসিনের ক্লিনিক্যাল ট্রায়াল শুরু হতে পারে : ঔষধ প্রশাসন অধিদপ্তর

শিমুল মাহমুদ : [২]ঔষধ প্রশাসনের অধিদপ্তরের মহাপরিচালক মেজর জেনারেল মাহবুবুর রহমান বলেছেন, বাংলাদেশ অক্সফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয় ও চায়নার ভ্যাকসিন প্রস্তুতকারী প্রতিষ্ঠানের সাথে যোগাযোগ করে আলোচনা কিছুটা এগিয়েছে। ঔষধ প্রশাসন আশাবাদী আগামী জুনেই ভ্যাকসিনের ট্রায়াল শুরু করতে পারবে।

[৩]ভ্যাকসিন দুটি দেশে ক্লিনিক্যাল ট্রায়ালের জন্য আইসিডিডিআরবির সঙ্গে যোগাযোগ চলছে বলে জানান তিনি।

[৪]জেনারেল মাহবুবুর রহমান বলেন, আমাদের দেশের এটির ক্লিনিক্যাল ট্রায়ালের প্রয়োজন আছে। কারণ, ইউরোপ-আমেরিকার মানুষের মধ্যে ভ্যাকসিনটা যেভাবে কাজ করবে আমাদের এখানে সেটা নাও করতে পারে।

[৫]আগামী ২০ মে এর মধ্যে করোনা রোগীদের চিকিৎসায় রেমডিসিভির ঔষুধের ব্যবহার শুরু হওয়ার আশা প্রকাশ করেন ঔষধ প্রশাসনের অধিদপ্তরের এ মহাপরিচালক।

[৬]তিনি বলেন, রেমডেসিভির আসলে ইবোলা রোগের জন্য তৈরি হয়েছিলো। পুরনো একটা মেডিসিন। আমরা দুই মাস আগে থেকেই আমাদের বিভিন্ন সায়েন্টিফিক জার্নাল অথবা ঔষধ মেনুফেকচারদের সাথে আলোচনায় ধারনা করছি যে রেমডেসিভির কাজে লাগতে পারে। এর থেকেই আমাদের প্রস্তুতি ছিলো এবং আটটি প্রতিষ্ঠানকে অনুমতি দিয়েছি।

[৭]দুপুরে রাজধানীর মহাখালিতে ঔষধ প্রশাসন অধিদপ্তর কয়েকটি ঔষধ কোম্পানির সঙ্গে বৈঠক শেষে এসব কথা বলেন।

[৮]এদিকে বিশ্বব্যাপী ৮ টি দেশ করোনা প্রতিরোধের ভ্যাকসিন আবিষ্কারের চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে। এরিমধ্যে কয়েকটি ধাপ এগিয়েছে কিছু দেশ।

[৯]এ বিষয়ে অক্সফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রফেসর জন বেল জানান, ৬ সপ্তাহ অর্থাৎ, জুন মাসের মাঝামাঝি সময়ের মধ্যে মানবদেহে ভ্যাকসিনের প্রভাব সম্পর্কে নিশ্চিত হওয়া যাবে। তারপরই এটি সবার জন্য উন্মুক্ত করে দেয়া হবে।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত