প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

[১] স্বাস্থ্য অধিদপ্তরে জনস্বাস্থ্যবিদদের নির্দেশনা, অর্থনৈতিক কর্মকাণ্ড ধীরে ধীরে শুরু করার পরামর্শ

লাইজুল ইসলাম : [২] স্বাস্থ্য অধিদপ্তর একটি ৮ সদস্য বিশিষ্ট কমিটি গঠন করে করোনা পরিস্থিতি মোকাবেলায় করনীয় নিয়ে সহযোগিতা করতে। এই কমিটি বেশ কিছুদিন আট বিভাগ ও বিভিন্ন এলাকসহ অনেক কিছু পর্যালোচনা করেছেন। তারা চীন ও অন্যান্য দেশের সংশ্লিষ্ট কারিগরি নির্দেশনাগুলোও পর্যবেক্ষণ করেছেন। সেগুলো দেখে দেশের অবস্থা বুঝে একটি ৩৪ পাতার নির্দেশনামূলক বই জমা দিয়েছেন।

[৩] যেখানে বলা আছে বিভিন্ন ব্যবসায়ীক প্রতিষ্ঠান খোলা যাবে। কিন্তু সব এক বারে নয়। ধাপে ধাপে খোলা কথা বলা হয়েছে। তবে এসব প্রতিষ্ঠান খোলার বিষয়ে বেশ বিধি নিষেধও সংযুক্ত করে দিয়েছে কমিটি।

[৪] রিপোর্টে করোনাভারিাস পরিস্থিতিকে তিনটি ভাগে ভাগ করা হয়েছে। স্বল্প, মধ্যম ও উচ্চ। নির্দেশনায় যেসব প্রতিষ্ঠানের কথা বলা হয়েছে যেমন, মন্ত্রণালয়, সরকারি-বেসরকারি প্রতিষ্ঠান, ব্যবসা কেন্দ্র। এসব প্রতিষ্ঠানকে অবশ্যই নির্দেশনার আলোকে তিনটি ভাগে ব্যবস্থা গ্রহণ করতে হবে। এরপরই তারা প্রতিষ্ঠান খুলতে পারবেন।

[৫] যেসব ব্যক্তি ও প্রতিষ্ঠানকে এই নির্দেশনা মানতে হবে : বাড়ি ও অ্যাপার্টমেন্ট ভবন, অফিস স্পেস, হোটেল, শপিংমল, ব্যাংক, রেস্টুরেন্ট, সেলুন, কৃষিজাত দ্রব্যের বাজার ও গ্রাম্য হাট-বাজার, পার্ক, স্বাস্থ্য সেবা প্রতিষ্ঠান, মেডিকেল কোয়ারেন্টাইন ও পর্যবেক্ষণ এলাকা, রেল পথের যাত্রী পরিবহন, সড়ক পথের যাত্রী পরিবহন, নৌপথে যাত্রী পরিবহন, সিভিল এভিয়েশন ,বাস-ট্যাক্সি, ব্যক্তিগত গাড়ি, বিদেশ থেকে ফেরা বা দূরবর্তী স্থান থেকে আগত লোকজনের স্থানান্তর, যানবাহন, রিকশা ও ত্রিচক্রযান, ওয়ার্ড-গ্রাম-পাড়া বা মহল্লার জন্য নির্দেশনা দেয়া হয়েছে।

[৬] এ ছাড়া প্রতিষ্ঠান কারখানা (গার্মেন্টস, হোসিয়ারি, চামড়া ও টেক্সটাইল ইত্যাদি), নির্মাণ শিল্প, ডাক ও এক্সপ্রেস বিতরণ শিল্প, সরকারি অফিস, শিশুযত্ন কেন্দ্র, শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান, বৃদ্ধনিবাস, কারাগার ,মানসিক স্বাস্থ্য চিকিৎসা প্রতিষ্ঠান, প্রবীণ নাগরিক, গর্ভবতী মা, শিশু, শিক্ষার্থী, চিকিৎসা প্রাপ্তি, পুলিশ সদস্য, কোম্পানি স্টাফ, কাস্টমস (অভিবাসন পরিদর্শন, স্বাস্থ্য এবং কোয়ারেন্টাইন) কর্মচারী, ড্রাইভার, কুরিয়ার সেবা, ইউটিলিটি সেবা প্রদানকারী প্রতিষ্ঠানের কর্মচারী, বাবুর্চি, নিরাপত্তাকর্মী, স্যানিটেশন ব্যবস্থাকর্মী,পরিচ্ছন্নকর্মী এবং খাদ্য পরিবেশনকারীর জন্য নির্দেশনা দেয়া হয়েছে। জাগো নিউজ

[৭] নির্দেশনা বলা হয়, পুস্তকে প্রতেকটি প্রতিষ্ঠানের বেলায় আলাদা করে নির্দেশনা দেওয়া আছে। তিন ভাগে বিভিক্ত পদক্ষেপগুলো সঠিক ভাবে নেওয়ার নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে। এগুলো অবশ্যই মানতে হবে। এছাড়া এসব নির্দেশনা পরিবর্তনশীল বলে লেখা আছে পুস্তকটিতে।

কভড-১৯_করগর_নরদশন_বশষজঞ_পরণত_২_ম_২০২০

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত