প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

বিয়ের আসরেই গান ধরলেন রবীন্দ্রনাথ

তক্ষশীলা : বিয়ের বাসরে বসেই রবীন্দ্রনাথ শুরু করলেন দুষ্টুমি। ভাঁড়-কুলো খেলায় ভাঁড়ের চাল ঢেলে আবার ভাঁড় ভর্তি করে ফেলাই যেখানে নিয়ম, রবীন্দ্রনাথ সেখানে উল্টে দিলেন সব ভাঁড়। জিজ্ঞেস করলে ছোট কাকিমা ত্রিপুরা সুন্দরীদেবীকে বললেন, ‘সব যে উলট পালট হয়ে যাচ্ছে—কাজেই ভাঁড়গুলো উল্টে দিচ্ছি।’ এরপর বাসরে দরাজ গলায় মৃণালিনীর দিকে তাকিয়ে গান ধরলেন রবীন্দ্রনাথ : ‘আ মরি লাবণ্যময়ী/কে ও স্থির সৌদামিনী/পূর্ণিমা-জোছনা দিয়ে/মার্জিত বদনখানি/নেহারিয়া রূপ হায়/আঁখি না ফিরিতে চায়/অপ্সরা কি বিদ্যাধরী/ কে রূপসী নাহি জানি।’ লজ্জায় ওড়নায় মুখ ঢেকে মাথা হেঁট করে বসে রইলেন মৃণালিনী। বিয়ের খুঁটিনাটি ব্যবস্থা করেছিলেন মহর্ষি স্বয়ং। ঠাকুরবাড়ির কর্মচারি সদানন্দ মজুমদারকে দিয়ে কনের আর কনের আত্মীয়স্বজনের বাড়ি পাঠিয়েছিলেন নানারকম আশীর্বাদী মিষ্টি আর খেলনা। বিয়ের নিমন্ত্রণপত্র বন্ধুদের নিজে হাতে লিখে পাঠিয়েছিলেন রবীন্দ্রনাথ। কতোজনকে পাঠিয়েছিলেন জানা যায় না। তবে প্রিয়নাথ সেনকে লেখা নিমন্ত্রণপত্রের খোঁজ পাওয়া যায়, যেখানে মজা করে রবীন্দ্রনাথ লিখেছেন, ‘আগামী রবিবার ২৪ শে অগ্রহায়ণ তারিখে শুভদিনে শুভলগ্নে আমার পরমাত্মীয় শ্রীমান রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের শুভ বিবাহ হইবেক।’ এই চিঠির উপরে ছাপা ছিলো মাইকেল মধুসূদন দত্তের ‘মেঘনাদ বধ’ কাব্যের একটি পংক্তি: ‘আশার ছলনে ভুলি কী ফল লভিনু হায়’। মৃণালিনী ছিলেন গভীর ব্যক্তিত্বময়ী, সুদর্শনা। নানা বর্ণনা থেকে জানা যায়, তাঁর গায়ের রং ছিলো একটু চাপা। কিন্তু রবীন্দ্রনাথের রূপসী ভ্রাতুষ্পুত্রী ইন্দিরা দেবী তাঁর স্মৃতিকথায় কেন যে লিখেছিলেন তাঁর ‘গুণবান, রূপবান, ভাগ্যবান, ধনবান, খ্যাতিমান’ রবিকাকার স্ত্রী মৃণালিনী ‘দেখতে ভালো ছিলেন না’, তা আন্দাজ করা কঠিন। শুধু ইন্দিরাদেবীই নন, ঊর্মিলাদেবীও তাঁর স্মৃতিচারণে লিখেছেন, ‘রবীন্দ্রনাথের স্ত্রী, সেরকম তো ভালো দেখতে নন’। তারপর ভালো করে দেখে তিনিই আবার লিখেছেন, ‘… এক অপরূপ লাবণ্যে সমস্ত মুখখানা যেন ঢলঢল করছে, আর একটা মাতৃত্বের আভায় যেন মুখখানা উজ্জ্বল। একবার দেখলে আবার দেখতে ইচ্ছে হয়।’
আসলে ঊর্মিলাদেবী শুনেছিলেন ঠাকুরবাড়ির মেয়েরা সব অপ্সরার মতো, ‘তাঁরা দুধ দিয়ে স্নান করেন, ক্ষীর সর ছানা বেটে রূপটান মাখেন— কত গয়না, কতো কাপড় যে আটপৌরে পরেন তার ঠিক নেই।’ সেদিক থেকে একেবারে আড়ম্বরহীন থাকতেন বলেই সম্ভবত মৃণালিনীর চটক ছিলো কম।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত