প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

[১] লিচুর ফলন ভালো হলেও লাভ নিয়ে দুশ্চিন্তায় বাগানীরা

আরিফ হোসেন: [২] চলতি বছর দিনাজপুরে লিচুর ফলন ভালো হলেও লাভ নিয়ে দুশ্চিন্তায় রয়েছেন বাগানীরা। তারা বলছেন, গত দুই বছর রোজার মাসে লিচু পাকায় লোকসান গুণতে হয়েছে তাদের। আর এবার করোনা পরিস্থিতি স্বাভাবিক না হলে তাদেরকে বেশ বিপাকেই পড়তে হবে। নিউজ ২৪

[৩] বাগানীদের সার্বিক সহযোগিতাসহ প্রণোদনা দেয়ার আশ্বাস দিলেন স্থানীয় কৃষি কর্মকতা।

[৪] লিচুর জেলা দিনাজপুর। জেলার ১৩টি উপজেলাতেই কমবেশি লিচু বাগান রয়েছে। তবে দিনাজপুর সদর, বিরল, কাহারোল উপজেলায় বাগানের সংখ্যা বেশি। এই অঞ্চলে বম্বাই, মাদ্রাজী, বেদানা, কাঠালী, চায়না থ্রীসহ বিভিন্ন জাতের লিচুর বাগান রয়েছে।

[৫] থোকায় থোকায় ঝুলে থাকা সবুজ রঙ্গের লিচু যেন অপেক্ষায় আছে জ্যৈষ্ঠ মাসের। একমাসেরও বেশি সময় লাগবে লিচু পাকতে। ফলন ভালো হওয়ায় এরই মধ্যে বাগানীরা পোকা দমনে কিটনাশক, সেচসহ নানা পরিচর্যায় ব্যস্ত সময় পার করছেন। তবে ন্যায্য দর নিয়ে দুশ্চিন্তায় বাগানীরা।

[৬] রোজা ও করোনা পরিস্থিতিতে ক্ষতির আশঙ্কায় সরকারের সহযোগিতা চাইলেন বাগানীরা।

[৭] সব রকমের সহযোগিতাসহ প্রয়োজনে বাগানীদের প্রণোদনার আওতায় আনা হবে বলে জানালেন কৃষি কর্মকর্তা। দিনাজপুর জেলায় সাড়ে ৬ হাজার হেক্টর জমিতে লিচুর বাগান রয়েছে এবং প্রতিবছর এই জেলায় লিচু উৎপাদন হয় ৩০ হাজার মেট্রিক টন।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বাধিক পঠিত