প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

[১] সীমিত পরিসরে চালু পোশাক কারখানা, খুলনায় খুলেছে রাষ্ট্রায়ত্ত পাটকল

মো. আখতারুজ্জামান ও মহসীন কবির : [২] সরকার থেকে অনুমোদন পাওয়ার পর বন্ধ থাকা রপ্তানিমুখী তৈরি পোশাক কারখানা ধাপে ধাপে চালু করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে এ খাতের মালিকদের সংগঠন বিজিএমইএ ও বিকেএমইএ।

[৩] শনিবার বিজিএমইএর ওয়েবসাইটে সংগঠনের সদস্যদের উদ্দেশে দেওয়া এক বার্তায় বলা হয়েছে, অর্থনীতির চাকা সচল রাখার জন্য সামগ্রিক বিবেচনায় বিজিএমইএ আপনাকে এলাকাভিত্তিক, সীমিত পরিসরে কারখানা খোলার পরামর্শ দেবে। এর আগে শ্রমিকদের ঢাকায় না আনার জন্যও সদস্যদেরকে পরামর্শ দেওয়া হলো।

[৪] বিজিএমইএ সদস্যদের উদ্দেশে স্পষ্ট করে বলা হয়েছে, সেইসব কর্মীদের নিয়ে কারখানা চালু করুন, যারা কারখানার নিকটবর্তী স্থানে বসবাস করেন।

[৫] আরও বলা হয়েছে, মানবিক কারণে শ্রমিকদের ছাঁটাই না করার জন্য সদস্যদের অনুরোধ করা যাচ্ছে। অনুপস্থিত শ্রমিককে এপ্রিল মাসের বেতন পৌঁছে দেওয়া হবে।

[৬] জানা যায়, কারখানা চালু করতে কাজ শুরু করে বিজিএমইএ ও বিকেএমইএ। শনিবার বিকেএমইএ তাদের সব সদস্য কারখানাকে স্যাম্পল, নিটিং ও ডায়িং সেকশন চালু করার নির্দেশনা দিয়েছে।

[৭] অন্যদিকে এলাকাভেদে সীমিত পরিসরে ধাপে ধাপে কারখানা চালু করতে উদ্যোগ নিয়েছে বিজিএমইএ। প্রথম ধাপে কাল রোববার ও পরশু সোমবার দুই দিনে ঢাকার ১৯৮টি কারখানা খোলার নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে।

[৮] এভাবে ধাপে ধাপে কারখানা খোলা হবে। প্রত্যেকটি কারখানায় স্বাস্থ্য বিধি মেলে চলারও নির্দেশনা দেয়া হবে। দেয়া হবে এ বিষয়ে গাইডলাইন। তবে ৩০ এপ্রিল পর্যন্ত শুধুই নিটিং, ডায়িং ও স্যাম্পল সেকশন, ২ মে কাটিং এবং ৩ মে থেকে সুইং সেকশন চালুর পরামর্শ দিচ্ছে বিজিএমইএ।

[৮] এদিকে এক মাস পর খুলনা অঞ্চলের রাষ্ট্রায়ত্ত পাটকল রোববার (২৬ এপ্রিল) থেকে আবার চালু হয়েছে। করোনা ভাইরাস সংক্রমণ রোধে পাটকলগুলোতে গত ২৬ মার্চ থেকে সাধারণ ছুটি ছিল। শারীরিক দূরত্ব বজায় রেখে এবং স্বাস্থ্যবিধি মেনে মিল চালানো হবে বলে কর্মকর্তারা জানান। বাংলানিউজ

সর্বাধিক পঠিত