প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

জীবনের ঝুঁকি নিয়েই সেবা দিচ্ছেন অ্যাম্বুলেন্স চালকরা

মহসীন কবির : [২]  জীবনের ঝুঁকি নিয়ে যারা নিরন্তর সেবা দিয়ে চলছেন করোনা আক্রান্ত রোগী ও মৃতদের। আক্রান্তেও হচ্ছেন তারা। পর্যাপ্ত নিরাপত্তা সরংঞ্জাম ছাড়াই সামাজিক দায়বদ্ধতা ও মানবতার খাতিরে করোনা রোগীদের সেবা দিয়ে যাচ্ছেন তারা। চ্যানেল২৪

[৩] সংক্রমণের ভয়ে যখন পিছপা স্বজন-পরিজন ঠিক তখন আক্রান্তের পাশে দাড়াচ্ছেন অ্যাম্বুলেন্স চালকরা। বঞ্চনা, লাঞ্ছনা আর নিগ্রহের শিকার এই মানুষগুলোর দিনকাটছে খেয়ে না খেয়ে। পরিবারকে বাঁচাতে কেউবা ঘর ছাড়া, কারও ঠাঁই মিলেছে সংস্থার কর্ণধারের বাড়িতে, কারো ঠিকানা অ্যাম্বুলেন্স।

[৪] দেশে বেসরকারি দুই হাজার ৮০টি অ্যাম্বুলেন্স থাকলেও শুধু ঢাকায় করোনা রোগীর প্রয়োজনে নিয়োজিত মাত্র ৬ টি। ব্যক্তি উদ্যোগে করোনাআক্রান্ত বা মৃতদের জন্য এই সেবা চলছে দিন-রাত। জরুরী প্রয়োজন অথবা করোনা কল সেন্টারে একটা ফোন কলই যথেষ্ট।

[৫] সেবা দিতে গিয়ে পুলিশের রিকুইজিশন সমস্যা বাড়াচ্ছে। সমাধানে, সব পক্ষের সাথে সমন্বিত আলোচনার কথা বলছেন অ্যাম্বুলেন্স সার্ভিসের কর্ণধাররা। বিপদের দিনে প্রণোদনা চাননা তারা। বরং ভীতি ভুলে সেবার ব্রত হাতে এগিয়ে যেতে চান, মানবতার জয়গান গাইতে গাইতে।

[৬] উত্তরা এলাকার অ্যাম্বুলেন্স চালক মোহাম্মদ মামুন মিয়া বলেন, ‘রোগী টানতে চাই না বিষয়টি এমন না। আমরাও তো মানুষ। আট বছর ধরে অ্যাম্বুলেন্স চালাই, কোনোদিন রোগী ফিরিয়ে দিইনি। কিন্তু এখন তো জীবন নিয়ে টানাটানি। দুইটা পয়সার থেকে নিজের জীবন ও পরিবারের সদস্যদের জীবন বড়। বাংলা ট্রিবিউন

[৭] মামুন মিয়া আরও বলেন, ‌’কুর্মিটোলা হাসপাতাল থেকে কয়েকদিন আগে একটা লাশ আনতে ফোন করেছিল; সেটা করোনা রোগী ছিল কিনা তাও জানি না। কিন্তু পোশাক না থাকায় না করে দিয়েছি। ওই হাসপাতালে তো এখন করোনা রোগীদেরই রাখা হচ্ছে। খারাপ লাগছে, কিন্তু আমাদের কিছু করার নেই। বাংলা ট্রিবিউন

 

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত