প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

[১] প্রধানমন্ত্রী ঘোষিত অর্থনৈতিক প্যাকেজে এক নজরে খাতওয়ারি বিএনপির বিশ্লেষণ

শাহানুজ্জামান টিটু : [২] প্রধানমন্ত্রী ঘোষিত ৯৫ হাজার ৬১৯ কোটি টাকার অর্থনৈতিক প্যাকেজটি কলেবরে বড় হলেও এটি মূলত একটি শুভঙ্করের ফাঁকি, বলেছেন মির্জা ফখরুল। তিনি বলেন, পর্যালোচনা করলে দেখা যায় যে প্রণোদনা বলা হলেও মূলত অধিকাংশই ব্যাংকনির্ভর ঋণ-প্যাকেজ। যা বিভিন্ন সেক্টরের ব্যবসায়ী মহলকে দেয়া হবে ব্যাংক- গ্রাহক সম্পর্কের ভিত্তিতে। এতে সরকারের প্রণোদনা নিতান্তই অপ্রতুল।

[৩] প্রধানমন্ত্রী ঘোষিত ৯৫ হাজার ৬১৯ কোটি টাকার অর্থনৈতিক প্যাকেজে এক নজরে খাতওয়ারি বিএনপির বিশ্লেষণ ক্রমিক নং খাত ভিত্তিক বণ্টন মন্তব্য-
১. গার্মেন্টস ও রপ্তানিমুখী ৫,০০০ কোটি টাকা । ব্যাংক ঋণ
২. শিল্প ও সার্ভিস সেক্টর ৩০,০০০ কোটি টাকা । ব্যাংক ঋণ
৩. অতি ক্ষুদ্র, ক্ষুদ্র ও মাঝারি শিল্প ২০,০০০ কোটি টাকা । ব্যাংক ঋণ
৪. EDF সম্প্রসারণ ১২,৭৫০ কোটি টাকা । ব্যাংক ঋণ
৫. প্রি – শিপমেন্ট ক্রেডিট ফিন্যান্স স্কিম ৫,০০০ কোটি টাকা । ব্যাংক ঋণ
৬. চিকিৎসক, নার্স ও স্বাস্থ্য কর্মীদের বিশেষ সম্মানী (special honorarium) ১০০ কোটি টাকা । সরকারি কোষাগার থেকে বরাদ্দ
৭. চিকিৎসক, নার্স, স্বাস্থ্য কর্মী, প্রশাসনের কর্মকর্তা, আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্য, সশস্ত্র বাহিনী ও বিজিবি সদস্য এবং প্রত্যক্ষভাবে নিয়োজিত প্রজাতন্ত্রের অন্যান্য কর্মচারীদের জন্য স্বাস্থ্য বীমা ও জীবন বীমা বাবদ ৭৫০ কোটি টাকা । সরকারি কোষাগার থেকে বরাদ্দ
৮. স্বল্প আয়ের মানুষদের জন্য বিনামূল্যে খাদ্য সামগ্রী (ভিজিডি ও ভিজিএফ) বিতরণ বাবদ ২৫০৩ কোটি টাকা । বাজেট বরাদ্দ থেকে
৯. শহুরে নিম্নআয়ের মানুষের জন্য ঙগঝ এর আওতায় ১০ টাকা সের দরে চাল বিক্রিতে ভর্তুকি বাবদ ২৫১ কোটি টাকা। বাজেট বরাদ্দ থেকে
১০. দিনমজুর, রিকশা বা ভ্যানচালক অন্যান্য পেশার লোকজন ছাড়া আংশিক লকডাউন এর কারনে কর্মহীন হয়ে পড়েছেন তাদের জন্য এককালীন নগদ অর্থ বিতরণ ৭৬০ কোটি টাকা। সরকারি কোষাগার থেকে বরাদ্দ
১১. “social protection” এর আওতায় ৮১৫ কোটি টাকার বাজেট বরাদ্দ রয়েছে [বয়স্ক, বিধবা, স্বামী নিগৃহীত] ১০০ টি উপজেলায় শতভাগ উন্নীত করা হবে। বাজেট বরাদ্দ থেকে
১২. গৃহহীনকে গৃহ প্রদানের জন্য ২১৩০ কোটি টাকা। [জন্মশতবার্ষিকী উপলক্ষে গৃহীত কর্মসূচী] জন্মশতবার্ষিকী বরাদ্দ থেকে
১৩. কৃষি খাতে ২ লক্ষ মেট্রিক টন অতিরিক্ত ধান ক্রয় ৮৬০ কোটি টাকা। কৃষি খাতের বাজেট বরাদ্দ থেকে
১৪. কৃষি যন্ত্রপাতি ক্রয়ের জন্য বরাদ্দ দেয়া হয়েছে ২০০ কোটি টাকা। বাজেট বরাদ্দ থেকে
১৫. কৃষি খাতে চলতি মুলধন বাবদ ৪% সুদে ঋণ সরবরাহ ৫০০০ কোটি টাকা। ব্যাংক ঋণ
১৬. কৃষি ভর্তুকি বাবদ বরাদ্দ রাখা হয়েছে ৯,৫০০ কোটি টাকা। বাজেট বরাদ্দ থেকে
ঙ মোট ৯৫,৬১৯ কোটি টাকা বরাদ্দ করা হয়েছে। যা জিডিপির ৩.৩%। তন্মধ্যে-
ঙ ব্যাংক ঋণ = ৭৭,৭৫০ কোটি টাকা।
ঙ বাজেট ও প্রজেক্ট বরাদ্দ থেকে = ১৬,২৫৯ কোটি টাকা।
মোট = ৯৪,০০৯ কোটি টাকা।
ঙ সরকারি কোষাগার থেকে বিশেষ বরাদ্দ = ১,৬১০ কোটি টাকা।
সর্বমোট = ৯৫,৬১৯ কোটি টাকা।
ঙব্যাংক ঋণ বাবদ সরকারি ভর্তুকি প্রায় ৩,০০০ কোটি টাকা যোগ করলে সরকারি কোষাগার থেকে (বিশেষ বরাদ্দ) অর্থনৈতিক প্যাকেজ প্রণোদনা দাঁড়ায় মোট = ৩,০০০ কোটি + ১,৬১০ কোটি = ৪,৬১০ কোটি টাকা যা জিডিপির ০.১৬ শতাংশেরও কম।
ঙ যদি দাবী করা হয় যে বাজেট বরাদ্দ কিংবা কোনো বিশেষ প্রকল্প থেকে অর্থ দেওয়া হলেও তা সরকারি খাত থেকেই প্রদত্ত, সে ক্ষেত্রেও ঘোষিত প্যাকেজের আকার দাঁড়ায় ৯৫,৬১৯ কোটি -৭৭,৭৫০ কোটি= ১৭,৮৬৯ কোটি যা জিডিপির প্রায় ০.৬২ শতাংশ মাত্র। আমরা মনে করি করোনা ভাইরাস এর প্রভাব মোকাবিলায় সরকারি কোষাগার থেকে অর্থ যোগান দিয়ে একটি বিশেষ তহবিল গঠন করতে হবে। যেন অন্যান্য খাতের কর্মকান্ড বিঘ্নিত না হয়।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত