প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

[১] ডিজিটাল উপস্থাপনায় বরণ করা হলো ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

মনিরুল ইসলাম : [২] আজ পহেলা বৈশাখ। ১৪২৭ বঙ্গাব্দ। কল্যাণ আর মঙ্গলময় জীবনের আহবান জানিয়ে এসেছে বাঙালীর প্রাণের উৎসব বাংলা নববর্ষ। এসেছে আরও একটি নতুন বছর।

[৩] করোনা সর্তকতায় কারণে কোথাও হচ্ছে না নববর্ষের কোনো অনুষ্ঠান। জনসমাগম এড়াতে নিষেধাজ্ঞা রয়েছে প্রকাশ্যের বর্ষবরণ অনুষ্ঠানে। ঘরে বসে নববর্ষের অনুষ্ঠান পালনের আহ্বান রেখেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। জাতির উদ্দেশ্য দেয়া ভাষণে দেশবাসীকে বাংলা নববর্ষের শুভেচ্ছা জানিয়ে এ আহ্বান জানান প্রধানমন্ত্রী।

[৪] দেশজুড়ে সাধারণ ছুটি আর লকডাউনের মধ্যে এবারের নববর্ষের সব অনুষ্ঠান বাতিল করা হয়েছে। রমনার বটমূলে ছায়ানটের বর্ষবরণের অনুষ্ঠান। চারুকলায় মঙ্গল শোভাযাত্রা। নতুন বছরকে বরণের চিরাচরিত যে নিয়মে দেশের মানুষ বাঁধা পড়েছিলো, সে নিয়ম এবার নেই— যেন জনসমাগম না হয়। তবে রমনা বটমূলে বর্ষবরণের ছায়াবটের প্রভাতী আয়োজন না থাকলেও ডিজিটাল উপস্থাপনায় সীমিত আকারে বর্ষবরণের বিশেষ আয়োজন ছিলো। বিটিভির মাধ্যমে এই আয়োজন সম্প্রচার করা হয়। সকাল ৭ টায় শুরু হওয়া এ আয়োজন চলে ৫০ মিনিট। শেষ হয় ‘ আমার সোনার বাংলা, আমি তোমায় ভালোবাসি .. ‘ জাতীয় সংগীত দিয়ে। এ অনুষ্ঠানে ছায়ানট সভাপতি বলেন, বিশ্বময় যে পরিস্থিতি চলছে তা থেকে জয় হউক মানুষের। মহামারীর কাল পেরিয়ে আসুক সুসময়।

[৫] এদিকে, সংস্কৃতি মন্ত্রণালয়ও ডিজিটাল মাধ্যমে বর্ষবরণে আয়োজন করেছে। ইমপ্রেস টেলিফিল্মের কারিগরি সহযোগিতায় ‘এসো হে বৈশাখ ১৪২৭ ‘। সকাল ৮টা ৩০মিনিটে তা সম্প্রচার করা হচ্ছে। শুরুতে ছিলো রেজওয়ানা চৌধুরী বন্যার গাওয়া ‘ ধন ধান্যে পুস্পে ভরা, আমাদেরই বসুন্ধরা… । প্রচার করা হয় প্রধানমন্ত্রীর শেখ হাসিনার নববর্ষের শুভেচ্ছা বানী।

৬০ মিনিটের অনুষ্ঠানটি পরিচালনা করেছেন এজাজ খান স্বপন। এতে একটি বিশেষ পর্বে অংশ নেন ডা. নুজহাত চৌধুরী। সংগীত পরিবেশন করেন সাদী মহম্মদ, ইয়াসমীন মুস্তারী, সামিনা চৌধুরী ও শফি মন্ডল। আবৃত্তি করেছেন সাবেক সংস্কৃতিমন্ত্রী আসাদুজ্জামান নূর। ‘ এসো হে বৈশাখ এসো এসো ‘ সংগীতে বরণ করা হয় নতুন বছরকে।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত