প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

[১] করোনা আতঙ্কে বিডিআর বিদ্রোহের মামলা থেকে খালাস পাওয়া ২৭৮ জনের মুক্তির দাবি

ইসমাঈল ইমু : [২] করোনা নিয়ে দুশ্চিন্তায় মানসিক ভাবে বিপর্যস্ত হয়ে পড়েছেন বিডিআর বিদ্রোহের হত্যা মামলা থেকে খালাস পাওয়া ২৭৮ জন সদস্য ও তাদের পরিবার। মামলা থেকে খালাস পেলেও বিস্ফোরক মামলার কারণে মুক্তি মিলছে না বিডিআর-এর সাবেক এই সদস্যদের। ইতিমধ্যে ওই সদস্যদের পরিবারের পক্ষ থেকে প্রধানমন্ত্রী বরাবর আবেদন জানিয়েছে।

[৩] ভুক্তভোগী পরিবারের সদস্যরা বলেন, বিডিআর বিদ্রোহের ঘটনায় অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে তিনটি মামলা দায়ের হয়। যার একটি বিডিআরের প্রচলিত আইনে শেষ হয়েছে। এতে অনেকেরই সাজাভোগ শেষ হয়ে গেছে। এরপর বিডিআর এর হত্যা মামলা থেকেও খালাস পেয়েছেন ২৭৮ জন সদস্য। দুই বছর ১০ মাসের মধ্যে হত্যা মামলাটির বিচারকার্য শেষ হলেও গত আট বছরেও বিস্ফোরক মামলাটি শেষ হচ্ছে না। যে কারণে বছরের পর বছর জেলে পড়ে আছেন হত্যা মামলা থেকে মুক্তি পাওয়া সদস্যরা।

[৪] তারা বলেন, ২০১১ সালের ৫ জানুয়ারি হত্যা ও বিস্ফোরক আইনে মামলা দুটির চার্জ গঠন করা হয়। এর মধ্যে ২০১৩ সালের ৫ নভেম্বর হত্যা মামলার রায় দেওয়া হলেও বিস্ফোরক মামলাটি চলমান রয়েছে। গত আট বছরে বিস্ফোরক মামলায় মাত্র ১৫০ জন সাক্ষীর সাক্ষ্য গ্রহণ করা হয়েছে। অথচ হত্যা ও বিস্ফোরক মামলার সাক্ষী একই। এমতাবস্থায় জেলের মধ্যে থেকে অনেকেই ডায়াবেটিক, উচ্চ রক্তচাপ, হৃদরোগ, বক্ষব্যাধি, এলার্জি, শ্বাসকষ্ট ইত্যাদিত আক্রান্ত হয়ে অসুস্থ হয়ে পড়েছেন। সম্প্রতি বিশ্বব্যাপী করোনা ভাইরাস মহামারী আকার ধারন করায় কারাবন্দীদের সংক্রমণের আশঙ্কায় ভিতীগ্রস্থ ও আতঙ্কিত অবস্থায় আছেন তাদের পরিবার।

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত