প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

আমাদের সকলের জীবনকে হুমকিতে ফেলার মানে কী?

ড. নাজনীন আহমেদ : আমাদের সকলের জীবনকে হুমকিতে ফেলে এর মানে কী? বুঝলাম ব্যবসা নষ্ট হবে, বায়ার ও ব্র্যান্ড-এর সঙ্গে আপনার সম্পর্ক নষ্ট হবে, আপনার লাভের আয় হবে না, দেশের রপ্তানি আয় কম হবে, প্রবৃদ্ধি কম হবে। কিন্তু এখন কী সেসব বিবেচনার অবস্থায় আমরা আছি? প্লিজ বলবেন না যে ফ্যাক্টরি না খুললে শ্রমিকের বেতন দিতে পারবেন না। অর্ডার বাতিল হয়েছে মাত্র ৩ বিলিয়ন ডলারের । গত বছর মোট পোশাক রফতানি হয়েছিলো ৩৪ বিলিয়ন ডলার। সেই হিসাব করলে ১০ শতাংশ অর্ডারও বাতিল হয়নি। সব ফ্যাক্টরির অর্ডার তো বাতিল হয়নি, কিছু অর্ডার বাতিল হয়েছে। তারপরও রপ্তানি খাতের ফ্যাক্টরীর শ্রমিকদের বেতন দিতে সরকারের পাঁচ হাজার কোটি টাকার বরাদ্দ নিশ্চিত হলো। বড় ব্যবসায়ী হিসেবে আপনি আপনার শ্রমিকের দায়িত্ব নিলে, সরকারের ওই বরাদ্দ দিয়ে অনেক গরিব মানুষকে সাহায্য করা যেত। এত বড় ব্যবসায়ী হয়েও কেন তিন মাসের শ্রমিকের বেতন নিজেদের সঞ্চয় থেকে দিতে পারেন না, এটাই আমার মাথায় ঢুকলো না। তারপর এখন আবার ফ্যাক্টরি খুলছেন? শ্রমিকরা তো কাজ ছাড়াই বেতন পাওয়ার কথা । যদি তাদের কাজ থাকে এবং সেই কাজের মাধ্যমে যদি রপ্তানির আয় হয়, তাহলে তাদের বেতনের জন্য তো সরকারের বরাদ্দ দরকার নেই। আমাদের সবাইকে এতো ঝুঁকির মুখে ঠেলে দেয়ার দায় আপনাদেরকেই নিতে হবে। বিষয়টিতে অনতিবিলম্বে মনোযোগ দেয়া দরকার। আপনাদের এই দায়িত্বহীনতায় যদি একজন মানুষের মৃত্যু হয় আশাকরি নিজেদেরকে ক্ষমা করতে পারবেন। ফেসবুক থেকে

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত