প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

[১]ঝিনাইদহ কালীগঞ্জে একের পর এক শহরের পাড়া মহল্লাতে লকডাউন, গ্রামবাসী বলছে, করোনা সু-রক্ষায় সর্তকতা

ফিরোজ আহম্মেদ,ঝিনাইদহ প্রতিনিধিঃ [২]অসচেতন হলে আরো মহামারিতে রুপ নিতে পারে করোনা ভাইরাস। জীবনের সু-রক্ষায় এমনটা ভেবেই নিজ নিজ উদ্যোগে শহরের পাড়া মহল্লায় একের পর এক লকডাউন করছে এলাকাবাসী।

[৪]সোমবার শহরের মধুগঞ্জ ঢাকালে পাড়া, ফয়লা মাষ্টারপাড়া, নিশ্চিন্তপুর ও আংশিক আড়পাড়া সহ বেশ কয়েকটি এলাকায় বাশ বেধে গ্রামকে লকডাউনের আওতায় এনেছে গ্রামবাসীরা। তারা পাড়া মহল্লার মুল প্রবেশ পথে বাশের খুটি বেধে ব্যানার টানিয়ে দিয়েছে। সেখানে প্রবেশ পথে গ্রামের যুবকদের পাহারায় বসিয়ে বহিরাগত কাউকেই ঢুকতে দিচ্ছে না। (৪)উল্লেখ্য, গত দু’দিন আগেই পৌর এলাকার আনন্দবাগ পাইকপাড়া গ্রামবাসীরা তাদের গ্রামকে লকডাউনের ঘোষনা দিয়েছিল। এরপর থেকেই একের পর এক কালীগঞ্জ শহরের পাড়া মহল্লাগুলিতে লকডাউন করে চলেছে এলাবাসীরা। এদিকে শহরের পাড়া মহল্লাতে এমন লকডাউনের বিষয়টি ছড়িয়ে পড়ায় ইউনিয়ন গ্রামাঞ্চলেও লকডাউন করছে বলে শোনা গেছে।
শহরের নিশ্চিন্তপুর গ্রামের মুজাহিদ হোসেন সহ পাড়ার যুবকেরা জানান, এই মুহুর্ত্বে একটু বেশি সচেতন হওয়া দরকার। তা না হলে করোনা মহামারি আকারে ছড়িয়ে বেশ ক্ষতি হতে পারে। তারা তাদের গ্রামকে করোনার হাত থেকে নিরাপদ রাখতে বাইরের লোকদের চলাচল সিমিত করেছে। এজন্য গ্রামের যুবকদের পর্ষায়ক্রমে মুল রাস্তার প্রবেশ পথে বসিয়ে রেখেছে। যদিও বাইরে থেকে কেউ আসেন, তাদেরকে সেখানেই হ্যান্ডওয়াশ দিয়ে ধুইয়ে তবেই গ্রামে প্রবেশ করতে বাধ্য করছেন।
(৫)এভাবে শহর কেন্দ্রিক পাড়া মহল্লায় এলাকাসীদের উদ্যোগে এমন লকডাউন ঘোষনার বিষয়ে কালীগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী অফিসার সূবর্ণা রানী সাহা জানান, এ মুহুর্ত্বে গ্রামবাসীদের আরো সচেতন হতে হবে। বাশ বেধে সড়ক বন্ধ করা ঠিক হবে না। প্রয়োজনে রাস্তার মুখে দাড়িয়ে গ্রামবাসীদের সতর্কতার সাথে চলাচলে পরামর্শ দিতে পারবে।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত