প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

[১] করোনার মতো ভাইরাসের বাহক বনরুই, ভবিষ্যতের প্রাদুর্ভাব ঠেকাতে বন্যপ্রানির ব্যবসা বন্ধ করতে হবে, বলছে হংকং বিশ্ববিদ্যালয়

সিরাজুল ইসলাম: [২] গবেষক দলের প্রধান ড. টমি ল্যাম বলেন, করোনা সংশ্লিষ্ট দুই গ্রুপের ভাইরাস মানুষে ছড়িয়ে পড়ে। চীনে এ ভাইারাস পাওয়া গেছে মালয়েশিয়া থেকে চোরাইপথে আনা বনরুইয়ে। বিবিসি

[৩] তিনি বলেন, সার্স-কোভ-২ প্রাণী থেকে মানুষে ছড়িয়ে পড়ার নেপথ্যেও রয়েছে এ বনরুই। স্যাঁতস্যাঁতে স্থানে বন্যপ্রাণি বিক্রি অবশ্যই কঠোর হাতে দমন করতে হবে।

[৪] তবে বন্যপ্রাণি বিশেষ করে বাঁদুড় থেকে অন্য প্রানিতে এবং সেখান থেকে মানুষের দেহে কিভাবে ভাইরাস ছড়িয়ে পড়ে, তা আজও রহস্য। হর্স সু (ঘোড়ার খুঁড়াকৃতি) বাঁদুড় এবং বনরুইকে ভাইরাসের বাহক হিসেবে অভিযুক্ত করা হয়। কিন্তু এদের শরীরে এ ভাইরাস কিভাবে আসে, তা অজানা।

[৫] ল্যাম বলেন, এখন প্রশ্ন হলো এই বনরুই কোথা থেকে এই ভাইরাস পেল? এটা কি মালয়েশিয়া থেকে চীনে আনার সময় বাঁদুড়ের সংস্পর্শে ছিলো?

[৬] চীনে বাঁদুড় মাংস ও ওষুধ হিসেবে ব্যবহৃত হয়ে থাকে। বনরুইয়ের মাংস চীনাদের কাছে খুবই সুস্বাদু।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত