প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

[১] ত্রিপুরায় বাংলাদেশ সহকারী হাইকমিশনের সহযোগিতায় দেশে ফিরলেন ইয়াকুব দম্পত্তি

মো:সাইফুল ইসলাম আখাউড়া প্রতিনিধি: [২] ভারত জুড়ে লকডাউন থাকায় ত্রিপুরা রাজ্যের আগরতলায় খোলা আকাশের নীচে থাকা বাংলাদেশি দম্পত্তি দেশে ফিরে এসেছেন।আজ বৃহস্পতিবার দুপুরে আখাউড়া-আগরতলা স্থলবন্দর ইমিগ্রেশন চেকপোষ্ট সীমান্ত পথে এ দম্পত্তি দেশে ফেরেন।

[৩] গত ৫ ফেব্রুয়ারি ভারতের চেন্নাইয়ে লিভার ক্যান্সারের চিকিৎসা নিতে গিয়েছিলেন বাংলাদেশি এ দম্পত্তি। তারা হলেন কুমিল্লা জেলার মুরাদনগর ঠাকুরপাড়ার গ্রামের ইয়াকুব আলী (৫২) এবং তার স্ত্রী শিরিনা বেগম (৪৮)।

[৪] রোববার (২৪মার্চ) সন্ধ্যায় ফ্লাইটে চেন্নাই থেকে কোলকাতা হয়ে ত্রিপুরার আগরতলায় আসেন বাংলাদেশী এ দম্পত্তি। এসময় তারা করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ প্রতিরোধে ভারত সরকারের ঘোষিত লকডাউনে আটকা পড়ে আগরতলা শহরে খোলা আকাশের নীচে অবস্থান করেন।

[৫] বিষয়টি নিয়ে রাজ্যের গণমাধ্যমে হইচই পড়ে। আখাউড়া স্থলবন্দরের ইমিগ্রেশনে শিরিনা বেগম জানান, করোনা ভাইরাস সংক্রমণ রোধে ভারতের ত্রিপুরা রাজ্যে সরকারের লকডাইন থাকায় আগরতলা থেকে বাংলাদেশে আসার কোন সুযোগ ছিল না।

[৬] লকডাউন থাকায় আগরতলা শহরে কোন আবাসিক হোটেল কিংবা গেষ্ট হাউজ খোলা ছিল না। শহর ছিল জনমানব শূণ্য। কোথাও থাকার ব্যবস্থা না পেয়ে অসুস্থ্য স্বামীকে নিয়ে রাস্তার পাশে খোলা আকাশের নীচে বসে থাকি।

[৭] সেখানকার গণমাধ্যম কর্মীরা আমাদের অসহায়ত্বের খরটি মিডিয়াতে তুলে ধরেন। পরে রাজ্যের পুলিশ প্রশাসন ও আগরতলায় বাংলাদেশ সহকারী হাইকমিশন আমাদের খোঁজে বের করেন।

[৮] পরে আগরতলা হজ্জক্যাম্পে আমাদেরকে থাকার সুযোগ করে দেয়। রাজ্যে লকডাউন থাকা সত্বেও নিজ দেশে ফিরে আসার সুযোগ করে দেওয়ায় ত্রিপুরা রাজ্য সরকার ও বাংলাদেশ সহকারী হাইকমিশনের কাছে বাংলাদেশ দম্পত্তি কৃতজ্ঞতা জ্ঞাপন করেছেন।

[৯] ভারতের ত্রিপুরাস্থ বাংলাদেশ সহকারী হাইকমিশনার কিরীটি চাকমা বলেন, আগরতলা সাংবাদিকদের মাধ্যমে খবর পেয়ে ওইদিন রাতেই বাংলাদেশ দম্পত্তিকে মেডিক্যাল চেকআপের পর তাদের থাকা ও খাওয়ার ব্যবস্থা করা হয়। পরবর্তীতে রাজ্য সরকারের সহযোগিতায় অসুস্থ এ দম্পত্তিকে বৃহস্পতিবার দুপুরে আখাউড়া-আগরতলা ইমিগ্রেশন চেকপোষ্ট সীমান্ত পথে দেশে ফিরে যাওয়ার ব্যবস্থা করা হয়।

[১০] আখাউড়া ইমিগ্রেশন ইনচার্জ আবদুল হামিদ বলেন, করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ প্রতিরোধে ভারত জুড়ে লকডাউন চলছে। ইমিগ্রেশন চেকপোস্ট সীমান্ত পথে করোনাভাইরাসের সংক্রমণ সতর্কতায় কূটনৈতিক, অফিসিয়াল, জাতিসংঘ ও আন্তর্জাতিক সংস্থার ভিসাধারী ছাড়া অন্য কোনো ভিসার যাত্রী আখাউড়া-আগরতলা চেকপোষ্ট ইমিগ্রেশন সীমান্ত পথে পারাপার বন্ধ রয়েছে। সম্পাদনা: জেরিন আহমেদ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত