প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

[১]রাজধানীতে বদলেছে গণপরিবহন, আন্তঃজেলা রুটেও চলাচল সীমিত

মাজহারুল ইসলাম : [২] যাত্রী কম থাকায় বাসও তেমন বের হয়নি। আতঙ্কে ঢাকা ফাঁকা হয়ে যাচ্ছে। ব্যস্ত এলাকাগুলোতেও বাসের দেখা মিলছে না। রাস্তায় দু’একজন যাত্রী জমায়েত হলেও তাদেরকে দীর্ঘ সময় বাসের জন্য অপেক্ষা করতে হচ্ছে।

[৩] সড়ক পরিবহন মালিক সমিতির মহাসচিব খন্দকার এনায়েত উল্যাহ জানান, করোনা আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ায় সতর্কতার অংশ হিসেবে রাজশাহীর স্থানীয় প্রশাসন ও পরিবহন মালিক সমিতি বৈঠক করে বাস চলাচল বন্ধ রেখেছেন। কিন্তু সারাদেশে বাস যোগাযোগ বন্ধ রাখার সরকারি কোনও নির্দেশনা এখনও আসেনি। তিনি বলেন, সারাদেশে যাত্রী সংখ্যা অর্ধেকে নেমে এসেছে। ২৫ থেকে ৩০ শতাংশ যাত্রী নিয়ে দূরপাল্লার বাস ছেড়ে যাচ্ছে। নিয়মিত সময়ের চেয়ে যাত্রী সংখ্যা ৫০ থেকে ৬০ ভাগ কমে গেছে।

[৪] তবে যাত্রী কমলেও সারাদেশে রেলযোগাযোগ এখনও স্বাভাবিক রয়েছে। রেলওয়ের ঊর্ধ্বতন এক কর্মকর্তা জানিয়েছেন, তারা স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের নির্দেশনা অনুসরণ করবেন। এ নিয়ে আজ মন্ত্রীর সঙ্গে বৈঠকে বসবেন রেলওয়ের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা।

[৫] রেলওয়ে মহাপরিচালক শামসুজ্জামান জানান, ট্রেন চলাচল বন্ধ করার কোনও নির্দেশনা সরকার থেকে এখনও আসেনি। আজ মন্ত্রীর সঙ্গে বৈঠকের পর পরবর্তী সিদ্ধান্ত জানা যাবে। এর আগ পর্যন্ত সিডিউল অনুযায়ী ট্রেন চলাচল করবে।

[৬] রেলওয়ে সূত্রে জানা যায়, করোনাভাইরাসে আক্রান্ত রোগীদের চিকিৎসার জন্য রেলওয়ের ২টি হাসপাতাল প্রস্তুত করা হচ্ছে। এরমধ্যে ১টি ঢাকার কমলাপুর এবং অন্যটি চট্টগ্রামে রেলওয়ে বক্ষব্যাধি হাসপাতাল।

[৭] এ ছাড়াও রেলওয়ে পূর্ব ও পশ্চিমাঞ্চলের ৮টি হাসপাতাল ভবন ও ১৬টি ডিসপেনসারি প্রয়োজনে প্রস্তুত করা হবে। এরইমধ্যে এগুলো স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের অধীনে নেয়া হয়েছে। দেশের বড় বড় রেলওয়ে স্টেশন এলাকায় পরিচ্ছন্নতা কার্যক্রম চালানো এবং যাত্রীদের হ্যান্ড স্যানিটাইজার দিয়ে ও মাইকিং করে সচেতন করা হচ্ছে।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত