প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

[১] জীবননগরে দোকানির ভূল পরামর্শে কৃষকের ৪ বিঘা জমির পেঁয়াজের চারা মরে ক্ষতি

জামাল হোসেন, জীবননগর প্রতিনিধি : [২] চুয়াডাঙ্গা জীবননগর শহরের কিটনাশক ব্যাবসায়ি মিজানুরের ভুল পরামর্শে এক প্রান্তিক কৃষকে ৪ বিঘা জমির পেঁয়াজের চারা নষ্ট হয়ে ২লক্ষটার ক্ষতিসাধন। থানায় লিখিত অভিযোগ।

[৩] ক্ষতিগ্রস্ত কৃষক সুমন বলেন,আমি জীবননগর বিজিবি ক্যাম্প সংলগ্ন মাঠে ৪ বিঘা জমিতে পেঁয়াজের চাষ করি। পেঁয়াজের জমিতে শ্যামা ঘাস নামের আগাছা মারার জন্য জীবননগর শহরের কালিগঞ্জ রোডের মুন্সী মার্কেটের কিটনাশক ব্যবসায়ী বিশ্বাস ফার্টিলাইজারের মালিক মিজানুর রহমানের কাছে এসে শ্যামা ঘাস মারার জন্য ঔষধ নিতে চাইলে তিনি আমাকে জি ক্লিন নামের ৩ বোতল কিটনাশক প্রয়োগ করার জন্য পরামর্শ দিয়ে কিটনাশকগুলো দেন। আমি পরবর্তীতে গত ১৮ ই মার্চ বুধবার সকালে তার দেয়া পরামর্শ মোতাবেক পেঁয়াজের জমিতে কিটনাশকগুলো প্রয়োগ করি।

[৪] আজ শনিবার সকালে আমি আমার জমিতে গিয়ে দেখি আগাছা দমনের পরিবর্তে ৪ বিঘা জমির পেঁয়াজের চারা সব লালছে হয়ে মরে যাচ্ছে। এতে আমার প্রায় ২ লক্ষ টারার ক্ষতিসাধন হয়েছে। আমি দোকানিরা সাথে যোগাযোগ করলে তিনি আমাকে কোনরকম পাত্তা না দিয়ে বরং আমার সাথে খারাপ আচরণ করছেন।

[৫] আজ দুপুরে জীবননগর থানায় কিটনাশক ব্যাবসায়ী মিজানুরের নামে ক্ষতিপূরণ চেয়ে থানায় লিখিত অভিযোগ দিয়েছি। আমি প্রশাসনসহ কৃষিসম্প্রসাণ অধিদপ্তরের কাছে সুষ্ঠু বিচার প্রার্থনা করছি।

[৬] এব্যাপারে বিশ্বাস ফার্টিলাইজারের মালিক মিজানুর রহমানের সাথে যোগাযোগ করলে তিনি বলেন, আমি সুমনের পেঁয়াজের জমিতে গিয়ে ছিলাম। আমার দেয়ে ঔষধের জন্য কোনো ক্ষতি হইনি। সুমনের পেঁয়াজের জমিতে পেঁয়াজ গাছের আগা মরা রোগ হইছে।

[৭] জীবননগর থানার অফিসার ইনচার্জ ওসি তদন্ত ফেরদৌস ওয়াহিদ বলেন, ক্ষতিগ্রস্ত চাষী সুমন থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দিয়ে গেছেন। আমরা বিষয়টি সরেজমিনে তদন্ত করে দোষী ব্যক্তির বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করবো। সম্পাদনা: জেরিন আহমেদ

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত