প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

[১] করোনার চেয়েও ডেঙ্গু বড় আকার ধারণ করতে পারে, বললেন অধ্যাপক এ বি এম আবদুল্লাহ

সুজিৎ নন্দী : [২] ঢাকা উত্তর ও দক্ষিণ সিটির ডেঙ্গু নিধন অভিযান শুরু হয়নি। ঝিমেতালে চলছে মশা নিধন কার্যক্রম। মার্চের শেষ সপ্তাহে বৃষ্টি হবে। এর পরপরই ডেঙ্গু ভয়াবহ আকার ধারণ করতে পারে। করোনাভাইরাসকে ঘিরে আতঙ্কের কারণে ডেঙ্গু নিধন অভিযান দুই সিটি থেকে বিশেষ কোন অভিযান নেই। ডেঙ্গু নিধনে কেন্দ্রীয়, আঞ্চলিক ও ওয়ার্ড পর্যায়ে তিনটি কমিটি থাকার কথা থাকলেও করোনার কারণে তা থমকে গেছে। কীটনাশকের চাহিদা প্রণয়ন ও নিরবিচ্ছিন্ন সরবরাহ নিশ্চিত করার কথা থাকলে বাস্তবে নেই। সরেজমিন ও স্বাস্থ্য বিভাগ সূত্রে এ তথ্য জানা যায়।

[৩] বিশিষ্ট চিকিৎসক অধ্যাপক ডা. এ. বি. এম. আবদুল্লাহ বলেন, করোনা ভাইরাস আপাতত দুই সপ্তাহ বড় ধরণের ঝুঁকির মধ্যে আছে। এই সময়কালে আমরা যদি স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের নির্দেশনা মেনে চলে, প্রত্যেকে যদি সচেতন থাকে এবং দেশের বাইরে থেকে লোক না আসে তবে করোনার ঝুঁকি কমে যাবে।

[৪] তিনি আরও বলেন, ডেঙ্গুর নিধনের ব্যাপারে দুই সিটির যে কর্মকান্ড থাকা উচিৎ সেটা কিন্তু নেই। স্বাস্থ্য বিভাগ করোনাভাইরাস নিধনে কোন কাজ করছে এ রকম বড় ধরনের কার্যক্রম চোখে পরছে না। দুই সিটির স্বাস্থ্য বিভাগের প্রথমও উচিৎ ডেঙ্গু নিধনে বিশেষ অভিযান পরিচালনা করা। এই মুহুর্তে গুজব বড় একটি ক্ষতির কারণ।

[৫] ডিএনসিসির নবনির্বাচিত মেয়র আতিকুল ইসলাম বলেন, আমরা ডেঙ্গু এবং করোনাভাইরাস নিয়ন্ত্রণে কাজ করে যাচ্ছি। ডেঙ্গুর ব্যাপারে আমরা চিরুনি অভিযানের প্রস্তুতি নিয়েছি। করোনা আতংঙ্কে আমরা হাত ধোয়া কর্মসূচিসহ আগামী রোববার থেকে বিশেষ অভিযান চলবে। সকলের সঙ্গে সমন্বয়ে কাজ করারও প্রস্তুতি নিয়েছি।

[৬] ডিএনসিসির প্রধান স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ব্রিগেডিয়ার জেনারেল মোমিনুর রহমান মামুন বলেন, করোনাভাইরাস অবশ্যই ডেঙ্গু অভিযান ব্যাহত করবে। নাগরিকদের সহযোগিতাই পারে নগরবাসীকে এডিস মশা থেকে মুক্তি দিতে।

[৭] আসন্ন ডেঙ্গু মৌসুমে স্বাস্থ্য অধিদপ্তর ডিএনসিসি এডিস মশার প্রজননক্ষেত্র হিসেবে তেজগাঁও, তুরাগ, পল্লবী, মগবাজার, উত্তরা, গুলশান, বনানী, কাফরুল, খিলগাঁও, রামপুরা, মিরপুর, পীরেরবাগ, মোহাম্মদপুর, শেওড়াপাড়া, কাজীপাড়া, বনানী, গুলশান, বারিধারা চিন্থিত করেছে।

[৮] ডিএসসিসির দয়াগঞ্জ, নারিন্দা, স্বামীবাগ, গেন্ডারিয়াসহ আশপাশের এলাকা, দক্ষিণ মুগদাপাড়া, বাসাবো, মানিকনগর বিশ্বরোড, শেরেবাংলা রোড, হাজারীবাগ, মগবাজার ও রমনা, সেগুনবাগিচা, শাহবাগ, হাজারীবাগ, ফরাশগঞ্জ, শ্যামপুর, উত্তর যাত্রাবাড়ীতে এডিস মশার প্রজননক্ষেত্র বেশি।

[৯] ডিএসসিসির প্রধান স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ব্রিগেডিয়ার জেনারেল ডা. শরীফ আহমেদ জানান, আগামীতে মশা নিধনে বিশেষ অভিযান আসছে। ডেঙ্গু আমাদের নিয়ন্ত্রণে থাকবে। পাশাপাশি করোনার বিষয়েও আমরা মহানগর জেনারেল হাসপাতালকে প্রস্তুতি নিয়েছি।

সর্বাধিক পঠিত