প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

[১] করোনার কারণে শিশু মেলা আপাতত স্থগিত করা হয়েছে, বললেন স্পীকার

মনিরুল ইসলাম : [২] জাতীয় সংসদের স্পিকার ড. শিরিন শারমীন চৌধুরী বলেছেন, জাতির শ্রেষ্ঠ সন্তান বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে স্মরণীয় করে রাখতে সংসদ এবং সংসদ সচিবালয় সব ধরনের প্রস্তুতি নিয়েছে । তবে করোনার কারণে জন-সমাগম সম্পর্কিত দু-একটি কর্মসূচি আপাতত স্থগিত রাখা হচ্ছে। স্থগিত হওয়া দুটি অনুষ্ঠান হচ্ছে ১৯ মার্চ বঙ্গবন্ধুর স্মরণে আড়ম্বরপূর্ণভাবে শিশু মেলা ও সাইকেল র‌্যালীটি। পরে সুবিধা জনক সময়ে আয়োজন করা হতে পারে।

[৩] তিনি বলেন, বঙ্গবন্ধুর জন্ম-শতবার্ষিকীর আয়োজনে সংসদের বিশেষ অধিবেশনটি হবে মুজিব বর্ষের দর্পণ। কারণ এর আগে সংসদের কোন বিশেষ অধিবেশন কোন এক ব্যক্তির জীবন-কর্ম নিয়ে আলোচনায় হয়নি । যাকে ঘিরে এ আয়োজন তিনি হচ্ছেন সেই হাজার বছরের শ্রেষ্ঠ বাঙালি জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান।

[৪] রোববার সংসদ ভবনে সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে স্পিকার জানান, আগামী ২২ মার্চ সকাল সোয়া ৮টা থেকে ৮টা ৪০ মিনিটে সংসদ সদস্যরা ধানমন্ডি ৩২ নম্বর সড়কে বঙ্গবন্ধুর বাড়িতে সবাই উপস্থিত হবেন। সেখানে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা অংশ নিবেন। পৌনে ৯টায় প্রধানমন্ত্রী প্রথমে বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে শ্রদ্ধা নিবেদন করবেন। এর পর জাতীয় সংসদের স্পিকার, ডেপুটি স্পিকার এবং সিনিয়র সদস্যরাসহ পর্যায়ক্রমে সব সংসদ সদস্যরা শ্রদ্ধা নিবেদন করবেন। সেখান থেকে জ্যেষ্ঠতার ক্রমানুসারে সংসদ অভিমুখে পদযাত্রা শুরু হবে।

[৫] শিরিন শারমীন চৌধুরী বলেন, সংসদে সকাল ১১টায় বিশেষ অধিবেশন বসবে। সেখানে মহামান্য রাষ্ট্রপতি মো আবদুল হামিদকে আমন্ত্রণ জানানো হবে বিশেষ অধিবেশনে স্মরণীয় বক্তব্য রাখার জন্য। এর আগে পবিত্র কোরআন তেলাওয়াত সম্পন্ন হবে।

[৬] রাষ্ট্রপতির স্মরণীয় বক্তব্য সংসদে সাধারণ আলোচনার জন্য প্রস্তাব আহবান করা হবে। কে করবেন এখনো নির্ধারণ হয়নি। তবে প্রস্তাবটি প্রধানমন্ত্রী চাইলে নিজেই করতে পারেন। আলোচনা শেষে প্রস্তাবটি সর্ব-সম্মতিক্রমে গৃহিত।

[৭] তিনি বলেন, এই বিশেষ অধিবেশনব বিভিন্ন দেশের রাষ্ট্রদূত, বিভিন্ন বাহিনীর প্রধান, প্রধানমন্ত্রীর উপদেষ্টাগণ, সমাজের সুশীল সমাজের ব্যক্তিদেরকে আমন্ত্রণ জানানো হবে। এ তালিকায় প্রধানমন্ত্রী তনয়া ও তথ্য প্রযুক্তি উপদেষ্টা সজীব ওয়াজেদ জয় এবং তার স্ত্রীকে আমন্ত্রণ জানানো হচ্ছে। ইতিমধ্যে আমন্ত্রণপত্র অতিথিদের কাছে পৌঁছানো শুরু করা হয়েছে।

[৮] জাতীয় সংসদের স্পিকার বলেন, বিশেষ অধিবেশনে সরকার, বিরোধী দল, বিএনপিসহ অন্যান্য দলের সবাইকে আলোচনায় অংশ নেয়ার সুযোগ রাখা হচ্ছে। তবে, মহান এই নেতা সম্পর্কে কে কি বিষয়ে আলোচনা করবেন সেটা সংসদ থেকে নির্ধারণ করে দেওয়া হবে। আলোচনায় কারা অংশ নেবেন এ প্রসঙ্গে তিনি বলেন, বঙ্গবন্ধুর সঙ্গে সরাসরি যারা ছিলেন, সংসদের ট্রেজারি বেঞ্চের সিনিয়র সদস্যরা অংশ নেবেন এ আলোচনায়। এই অধিবেশন থেকে বর্তমান এবং আগামীর প্রজন্ম বঙ্গবন্ধু সম্পর্কে জানতে পারবে।

[৯] স্পিকার বলেন, মুজিব জন্ম শতবার্ষিকীতে সংসদ এলাকার পুরো মাঠজুড়ে থাকবে আলোকসজ্জা। লেজার শোর আয়োজন থাকছে। বিশেষ আলো প্রজ্জ্বলন করা হবে ১৭ মার্চ রাতে। থাকবে ওয়েব সাইট, ডাক টিকিট এবং প্রকাশনা উৎসব।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত