প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

মাদক, যৌন স্বেচ্ছাচারিতা, আনডিসিপ্লিন্ড লাইফস্টাইল অপরাজনীতি, শর্টকাটের ধান্ধা, প্রতারণা, অসততা সুবিধাবাদিতা ও ধোঁকাবাজির অন্ধগলির বদ্ধ আঁধারে ঘুরছে তারুণ্য

 

সাদিয়া নাসরিন : অর্জনের একটা আলাদা তৃপ্তি আছে। সব কিছু সময় মতো করতে পারার প্রশান্তি অন্যরকম। পড়াশোনা, বিয়ে, সন্তান, ক্যারিয়ার, সংসার…সব কিছু একই রকম নিয়ন্ত্রণে রাখার মতো ধী-স্থিতি আমার ছিলো এবং আছে এই বোধটুকু একচল্লিশের এই আমাকে কনফিডেন্ট করে। সবচে ভালো লাগে যখন দেখি একচল্লিশ বছরের এই জীবনটার পুরোটাই আমি নিয়ন্ত্রণ করতে পেরেছি। কখনো কোনো মূহুর্তের জন্যও কোনোকিছুর প্রতি নির্ভরতা আমাকে কাবু করতে পারেনি। না নেশা, না মানুষ, না লোভ। কোনো নেশা আমাকে খেতে পারেনি। চা, কফি, নিকোটিন, অ্যালকোহল, ড্রাগ বা মানুষ কোনো কিছুই আমাকে চালাতে পারেনি। আমি ঠিক করেছি কোনো নেশা আমার থাকবে কোন নেশা থাকবে না। আমি তখন তাই করেছি, যখন যা আমি করতে চেয়েছি। যখনই মনে হয়েছে কিছু একটা আমাকে খেয়ে নিচ্ছে, যতো কষ্টই হোক, যতো প্রিয়ই হোক সেটা ঝেড়ে ফেলেছি।

এ বছর মেলায় সব ঠিক করেও বই না দেয়ার একটা বড় কারণ ছিলো এটি। বইমেলা আমাকে গ্রাস করতে শুরু করছিলো। টার্গেটিভ লেখায় অভ্যস্ত করে তুলছিলো। ফ্যান ফলোয়ারের নেশায় পাচ্ছিলো। বের হয়ে এসেছি সেসব থেকে। তো, ত্রিশ বত্রিশ বছরের তরুণদের যখন আমি এখনো বিভ্রান্ত, দিকভ্রান্ত বা উদ্ভ্রান্তের মতো দেখি আমার মায়া হয়, কিন্তু তার চাইতেও বেশি আসে বিরক্তি। কী অবহেলায় না জীবনের এই মধুসময় হারাচ্ছে একটা প্রজন্ম! মাদক, যৌন সেচ্ছাচারিতা, আনডিসিপ্লিন্ড লাইফস্টাইল, অপরাজনীতি, শর্টকাটের ধান্ধা, প্রতারণা, অসততা, সুবিধাবাদীতা, ধোঁকাবাজি….কতোরকমের অন্ধগলির বদ্ধ আঁধারে ঘুরছে তারুণ্য। কী দেবে এরা জীবনকে? দেশকে কিছু দেয়ার প্রশ্ন তো অনেক দুর। নিজেকেই যারা দিতে পারেনা তারা দেশকে কী দেবে? ভাবে এরা ?
আমি এদের দেখি আর ফিরে তাকাই আমার ২৮-৩০ বছরের দিন গুলো।

ধন ধাণ্য পুষ্প ভরা সেসব দিন। ২৫ বছর বয়সে, পনের মাসের মেয়ে শিশু নিয়ে মফস্বল থেকে ৪০০০ টাকা বেতনের সাধারণ উন্নয়ন কর্মীর কাজ করতে আসা মেয়েটি ২৯ বছর বয়সে একটি আন্তর্জাতিক সংগঠনের ক্রসবর্ডার কার্যক্রমের দেশীয় প্রধান হয়ে ওঠার সেসব দিনগুলো শুধুই কাজের, পরিশ্রমের আর নিজেকে তৈরি করার। কোন শর্টকাট খেলিনি। স্বাধীনতা আর স্বেচ্ছাচারিতার ফাইনলাইনটা পরিষ্কার করে টেনে ধরতে পেরেছিলাম অল্প বয়সেই। সেই আমাকেই আমি এখনো ভালোবাসি। সেই আমিটাই এখনো সুন্দর। সেই আমিটাই এখনো বেঁচে আছি। ফেসবুক থেকে

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত