প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

পাপিয়ার ১০ দিন রিমান্ড চেয়েছে পুলিশ

মহসীন কবির : সোমবার দুপুরে মহিলা যুব লীগের বহিষ্কৃত নেত্রী শামীমা নূর পাপিয়াকে বিমানবন্দর থানা থেকে নিম্ন আদালতে নেয়া হয়ে। এরপার ১০ দিনের রিমান্ড আবেদন করেছে পুলিশ।বিকেল ৩টায় ঢাকা মহানগর হাকিম মাসুদুর রহমানের আদালতে এ বিষয়ে শুনানি হবার কথা রয়েছে। যমুনা ও ডিবিসি টিভি

এর আগে, রোববার ভোররাত ৪টার দিকে পাপিয়া ও তার স্বামী মফিজুর রহমান দেয়া তথ্যের ভিত্তিতে অভিযান চালিয়ে র‌্যাব পাপিয়ার বিপুল সম্পত্তির খোঁজ পায়।

শামীমা নূর পাপিয়া এবং তার স্বামী মফিজুর রহমানের মালিকানায় ইন্দিরা রোডে বিলাসবহুল দুটি ফ্ল্যাট, নরসিংদীতে দুটি ফ্ল্যাট ও দুই কোটি টাকা দামের দুটি প্লট, তেজগাঁওয়ে এফডিসি ফটকের কাছে কার এক্সচেঞ্জ নামের গাড়ির শো রুমে এক কোটি টাকার বিনিয়োগ ও নরসিংদী জেলায় ‘কেএমসি কার ওয়াশ অ্যান্ড অটো সলিউশন’ নামের প্রতিষ্ঠানে ৪০ লাখ টাকা বিনিয়োগের হদিস পাওয়া গেছে।

রাজধানীর কারওয়ান বাজারে র‌্যাব মিডিয়া সেন্টারে সংবাদ সম্মেলনে সংস্থাটি জানায়, পাপিয়ার বাসা ও পাঁচতারকা একটি হোটেল থেকে পাঁচটি পাসপোর্ট, ৫৮ লাখ ৪১ হাজার টাকা, একটি বিদেশি পিস্তল, দুইটি ম্যাগজিন, ২০ রাউন্ড গুলি, বিদেশি মুদ্রা ও কয়েক বোতল বিদেশি মদ উদ্ধার করে তারা।

এদিকে, হোটেল ওয়েস্টিনে অনিয়ন্ত্রিত জীবনযাপন, অঢেল অর্থ ব্যয় ও নানা অপরাধের সঙ্গে জড়িত নরসিংদী যুব মহিলা লীগ নেতা শামিমা নূর পাপিয়াকে দল থেকে বহিষ্কার করা হয়। সংগঠনের সভাপতি নামজমা আক্তার ও সাধারণ সম্পাদক অধ্যাপিকা অপু উকিল স্বাক্ষরিত এক বিজ্ঞপ্তিতে এই তথ্য জানানো হয়। বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, গঠনতন্ত্রের ২২ এর ‘ক’ ধারা অনুযায়ী দলীয় শৃঙ্খলা ভঙ্গের দায়ে তার বিরুদ্ধে এই ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে।

ওয়েস্টিন হোটেলে গত তিনমাস ধরে একটি প্রেসিডেন্ট স্যুট ও একটি বার নিজের নামে বুকিং দিয়ে সেখানে নানা অসামাজিক কাজ করে আসছিলেন পাপিয়া। গত তিন মাসে কমপক্ষে ৩ গোটি টাকা হোটেল বিলও দিয়েছেন তিনি। বিপুল এই টাকা পাপিয়া নারীদের দিয়ে অসামাজিক ব্যবসা, কমিশন বাণিজ্য, অস্ত্র, মাদক, অন্যের জমি দখলের মাধ্যমে আয় করতেন বলে ব্যাব জানায়।

গত শনিবার দুপুরে রাজধানীর হজরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর হয়ে দেশত্যাগের সময় শামিমা নূর পাপিয়া ওরফে পিউসহ চারজনকে আটক করে র‌্যাব-১। আটক অন্যরা হলেন: পাপিয়ার স্বামী মফিজুর রহমান ওরফে সুমন চৌধুরী ওরফে মতি সুমন (৩৮), সাব্বির খন্দকার (২৯) ও শেখ তায়্যিবা (২২)। এসময় তাদের কাছ থেকে ৭টি পাসপোর্ট, বাংলাদেশি নগদ ২ লাখ ১২ হাজার টাকা, জাল ২৫ হাজার টাকা, ৩১০ ভারতীয় রুপি, ৪২০ শ্রীলংকান মুদ্রা, ১১ হাজার ৯০ ইউএস ডলার উদ্ধার করা হয়।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত