প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

ইদলিব: মানব বিপর্যয়ের ভয়াবহ গল্প

ইয়াসিন আরাফাত : ইদলিবে গত তিন মাসে প্রায় নয় লাখ মানুষ বাড়িঘর ছেড়ে পালিয়েছে৷ শুধু ফ্রেব্রুয়ারিতেই বাস্তুহারা হয়েছে তিন লাখ মানুষ৷প্রাণ বাঁচাতে বাড়িঘর ছেড়ে পালিয়ে যাওয়াদের বেশিরভাগই নারী ও শিশু৷ তুরস্ক সীমান্তের কাছে তুষার ঢাকা পাহাড়ি এলাকায় নানা অস্থায়ী ক্যাম্পে তারা আশ্রয় নিয়েছে৷ সেখানে তাপমাত্রা মাইনাস সাতের নীচে নেমে যাচ্ছে৷ প্রচণ্ড ঠান্ডায় বিশেষ করে শিশুদের মৃত্যু হচ্ছে৷ডয়চে ভেলে

এদিকে পূর্ণ বিজয় নিশ্চিত করতে রাশিয়ার সহায়তায় আসাদ বাহিনী ফেব্রুয়ারিতে ইদলিবে সাঁড়াশি অভিযান শুরু করে, যার সবচেয়ে বড় শিকার হচ্ছে শিশুরা৷ তুরস্ক সমর্থন দিচ্ছে বিদ্রোহীদের আর রাশিয়া সমর্থিত সিরীয় বাহিনী বিদ্রোহীদের শেষ ঘাঁটি ইদলিব দখলে ফেব্রুয়ারি থেকে মরিয়া৷ আলোচনার মাধ্যমে যুদ্ধবিরতির চেষ্টাও ভেস্তে যাচ্ছে৷

দীর্ঘদিন ধরে ইদলিবকে দখল নিতে চাইছে সিরীয় বাহিনী৷ গত ১১ ফেব্রুয়ারি রাশিয়ার বোমারু বিমানের সহায়তায় ইদলিবের প্রায় পুরোটাই দখলে নিয়েছে তারা৷ এসময় শরণার্থী ক্যাম্প, হাসপাতাল বা স্কুল- কোনো বাছবিচার না করেই রুশ বিমান হামলা চালানো হয়েছে৷ জাতিসংঘ জানায়, গত দেড় মাসে ইদলিবে প্রায় তিনশ বেসামরিক নাগরিক নিহত হয়েছে৷ তাদের ৯৩ শতাংশকে হত্যা করেছে আসাদ বাহিনী ও তাদের মিত্ররা৷

ইদলিবে জঙ্গিদের পাল্টা হামলাও চলছে৷ সেগুলোর বেশিরভাগের শিকারও ওই সাধারণ মানুষ৷বাড়িঘর ছেড়ে পালিয়েও সাধারণ মানুষ প্রাণ রক্ষা করতে পারছে না৷ কারণ, শরণার্থী ক্যাম্পগুলোতেও হামলা হচ্ছে৷ অনেক পরিবার রাস্তাতেই থাকছে৷

এদিকে প্রায় ৩৫ লাখ সিরীয় শারণার্থী আগে থেকেই তুরস্কে আশ্রয় নিয়েছে৷ ওই বোঝা আর বাড়াতে রাজি নয় তুরস্ক সরকার৷ তাই সীমান্ত বন্ধ করে দিয়েছে৷ ফলে ইদলিবের সাধারণ মানুষদের আশ্রয়ের কোনো জায়গা নেই৷

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত