প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

অমর একুশে গ্রন্থমেলা ও পুলিশি আচরণ

খন্দকার সোহেল : প্রকাশক, শিল্পী, লেখক, পাঠক যাকে যেভাবে পারছে হেনস্তা করছে পুলিশ। অপ্রয়োজনে গায়ে হাত তুলছে। এটাতে অবশ্য আমি দোষ দেখি না। কারণ মগজ আর মননে শক্তি না থাকলেও হাত আর হাঁটুতে তাদের খুব শক্তি। তাই শক্তি প্রদর্শন তারা করতেই পারেন। তবে কিছুটা খারাপ তো লাগেই। কারণ আমাদের টাকায় মেলাটা হয়। অথচ আমরা মানে মেলার মূল স্টেকহোল্ডার যারা অর্থাৎ প্রকাশকরা মানে যাদের টাকায় মেলাটা হয় তাদের কোনো পাত্তা নেই। মেলায় আমাদের একটি আইডি কার্ড দেওয়া হয়। সে দিন এক পুলিশ কর্তাকে জিজ্ঞেস করেছিলাম, এই কার্ডের কোনো সুবিধা কি আমরা পেতে পারি? উত্তরে বললেন, বাংলা একাডেমিতে গিয়ে জিজ্ঞেস করেন।

পুনশ্চ : পুলিশের সঙ্গে বাহাস করে আমাদের জেতার উপায় নেই। তাই এখন উচিত মেলাটা পুলিশি মেলা হিসেবে ঘোষণা করে দেওয়া। বি.দ্র. প্রায় আট-দশ বছর হলো কলকাতা আন্তর্জাতিক বইমেলায় অংশ নিচ্ছি। সেখানে পুলিশদের দেখেছি কতো সহায়তা করেন লেখক-পাঠক-প্রকাশককে। পুরো শহরজুড়ে ব্যানার-ফেস্টুন দিয়ে ভরিয়ে ফেলেন তারা। খাওয়ার পানিসহ মেলার অনেক ব্যবস্থাপনা তারা দেখভাল করেন। ফেসবুক থেকে

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত