প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

নতুন প্রজন্মের জন্য প্রমিত ও পরিশীলিত ভাষার উন্নয়ন খুব জরুরি, বললেন ঢাবি উপাচার্য

আরিফ হোসেন : শুক্রবার (২১ ফেব্রুয়ারি) সকালে কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবসে ভাষা শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা জানাতে এসে এ কথা বলেন ঢাবি উপাচার্য মো. আখতারুজ্জামান।সময় টিভি ও যমুনা টিভি

তিনি বলেন, বাংলা যেন শুধু সাহিত্যের ভাষা না হয়, এই ভাষা হবে বিজ্ঞানের ভাষা, চিকিৎসা বিজ্ঞানের ভাষা, প্রকৌশল বিজ্ঞানের ভাষা। তাহলেই বাংলা আরও সমৃদ্ধ হবে।

তিনি আরো বলেন, বায়ান্নের ভাষা আন্দোলনের একটি মৌলিক দর্শন ছিলো। তা হলো যে কোনও জাতিসত্তার মানুষের ভাষার প্রতি শ্রদ্ধাশীল হওয়া ও তা সংরক্ষণ করা এবং সব জাতিসত্তার মানুষকে সুরক্ষা দেয়া। এটিই হলো বিশ্ব সভ্যতার জন্য বায়ান্নের ভাষা আন্দোলনের অবদান। যা আন্তর্জাতিক সম্প্রদায় আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা হিসেবে স্বীকৃতি দিয়েছে।

বিশ্বের বিভিন্ন প্রান্তে ক্ষুদ্র জাতিসত্তার মানুষ বিভিন্নভাবে নিগৃহীত হয় বলে উল্লেখ করে উপাচার্য বলেন, বায়ান্নের ভাষা আন্দোলন বিশ্ববাসীকে অনুপ্রাণিত করে। ফুল হাতে, খালি পায়ে হেঁটে আসা নগরীর হাজারো মানুষের গন্তব্য কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে। রাজধানীর বিভিন্ন প্রান্ত থেকে তারা ছুটে এসেছেন ভাষা শহীদদের শ্রদ্ধা জানাতে। এ যেন নগরীর সব পথ এসে মিশেছে শহীদ মিনারে। দিনের আলো ফুটে ওঠার সঙ্গে সঙ্গে ঘর ছেড়ে বেরিয়ে এসেছেন তারা।

কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারের ঘোষণা মঞ্চ থেকে মাইকে বাজানো হচ্ছে , আমার ভাইয়ের রক্তে রাঙানো একুশে ফেব্রুয়ারি। এই গানের সঙ্গে কণ্ঠ মিলিয়ে ধীর পায়ে শহীদ বেদিতে শ্রদ্ধা নিবেদন করছেন বিভিন্ন সংগঠন ও পেশার সাধারণ মানুষ।

ভাষার মর্যাদা রক্ষা করতে যারা বুকের রক্ত ঢেলে দিতে কার্পণ্য করেননি, একুশের প্রথম প্রহর শুক্রবার দিবাগত রাত ১২টা ১ মিনিটে শ্রদ্ধা আর ভালোবাসায় জাতির পক্ষে তাদের স্মরণ করলেন রাষ্ট্রপতি ও প্রধানমন্ত্রী। এসময় বীর শহীদদের স্মরণে তারা কিছুক্ষণ দাঁড়িয়ে নীরবতা পালন করেন।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত