প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

চীন থেকে ফেরত সবাই করোনা রোগী নয়, তবে ঝুঁকি থাকায় সতর্কাতা গ্রহণ করা হয়েছে, জানিয়েছে আইইডিসিআর

লাইজুল ইসলাম : জাতীয় রোগতত্ত্ব, রোগ নিয়ন্ত্রণ ও গবেষণা প্রতিষ্ঠান আইইডিসিআরের পরিচালক মীরজাদী সেব্রিনা। তিনি বলেন, তবে যারা উহান ফেরত বা করোনা ভাইরাস এলাকার আশেপাশে ছিলেন তাদের কোয়ারেনটাইন করতে হবে। আর বাকিদের নিজ বাসায় কোয়ারেনটাইন করতে হবে। তবে এতে চিন্তিত না হয়ে সাবধানতা অবলম্বন করার কথা বলেন সেব্রিনা।

সেব্রিনা বলেন, করোনাভাইরাস মোকাবিলায় সারাদেশে সতর্কতামূলক ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে। আর সেই কার্যক্রমের সূত্র ধরেই বিমানবন্দরে স্ক্রিনিং চলছে। এটা নিয়মিত কার্যক্রম। এই কার্যক্রম চলমান থাকার অর্থ এই নয় যে পরিস্থিতি আতঙ্কিত হওয়ার মতো।
তিনি বলেনা, চীন, সিঙ্গাপুর, মালয়েশিয়াসহ অন্যান্য দেশের সঙ্গে আমাদের নিয়মিত ও সরাসরি ফ্লাইট রয়েছে। তাই এসব দেশ থেকে আসা কারও মাধ্যমে যেন করোনার ঝুঁকি তৈরি না হয়, সেজন্য আমরা সতর্ক।

আইইডিসিআর পরিচালক জানান, বিশ্বস্বাস্থ্য সংস্থা থেকে রিএজেন্ট নেওয়া হয়েছে। দুই থেকে তিন দিনের মধ্যে এর মাধ্যমে আমারা ফল পাবো। এতে আমরা আরো এক ধাপ এগিয়ে থাকলাম।

এক প্রশ্নের উত্তরে মীরজাদী সেব্রিনা বলেন, সিঙ্গাপুরে আক্রান্ত বাংলাদেশিদের খোঁজ খবর রাখা হচ্ছে। একজন নিবিড় পর্যবেক্ষণ কেন্দ্রে আইসিইউ আছেন। সেখানে আরও ছয় জন বাংলাদেশি কোয়ারেনটাইনে আছেন। বাকিদের অবস্থা স্থিতিশীল।

তিনি বলেন, করোনাভাইরাসের জন্য যেসব দেশ ঝুঁকিপূর্ণ তাদের একটি তালিকা করেছে বিশ্বস্বাস্থ্য সংস্থা। তাই বাংলাদেশের কারো করোনা ভাইরাস নিয়ে এতটা আতঙ্কিত হওয়ার প্রয়োজন নেই।

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত