প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

আন্তর্জাতিক নিউজ এজেন্সির নিউজ বিশ্লেষণে স্পষ্ট করোনাভাইরাস নিয়ে চীন লুকোচুরি খেলেছে

দীপু তৌহিদুল : আন্তর্জাতিক নিউজ এজেন্সির নিউজ বিশ্লেষণে স্পষ্ট করোনা ভাইরাস নিয়ে চীন লুকোচুরি খেলেছে। ভাইরাসটির বিষয় চীন চেপেই ছিলো, কিন্তু বদহজম হওয়াতে এটি আপনাআপনি বের হয়ে এসেছে। এইটা চীন সরকার নিজের পেট থেকে মোটেও বের করেনি, মূলত পশ্চিমা গণমাধ্যমের প্রেশারে পড়েই করোনাভাইরাসের খবর গোটা বিশ্ব জানতে পেরেছে। এমনকি করোনাভাইরাসজনিত মৃত্যুর সংখ্যাটি নিয়েও যথেষ্ট দ্বিধা রয়েছে। চীন সরকার মৃতের যে সংখ্যাটা প্রতিদিন যা বলছে, বাস্তবে সেটা অবিশ্বাস করার মতো যথেষ্ট কারণ রয়েছে। করোনা ভাইরাসে চীনে যা মারা যাচ্ছে, বাস্তবে মিডিয়া নিউজে তা সেন্সরে কিঞ্চিৎ করে দেওয়া হচ্ছে। কমিউনিস্টরা যখন মিথ্যাচার করে তখন তারা খুবই স্মার্ট এবং নরম গানের সুরেই এটা করে। তার উপর চীন হচ্ছে পুঁজিবাদী কমিউনিস্ট রাষ্ট্রের একটা ককটেল, এই রাষ্ট্রের কাছ থেকে সত্যি আশা করাটাই অন্যায়।

সারা দুনিয়ার মেধা নকল করে করে অনৈতিকভাবে আজকে চীন এই অবস্থানে উঠে এসেছে। তাদের কাছ হতে কোনো রকমের সততা আশা করা শতভাগ ভুল। আমি আশা করি না। চীন সরকারের ফাজলামির কারণেই আজকে করোনাভাইরাস বিশ্ব ভ্রমণে বের হতে পেরেছে। তাই করোনাভাইরাস ছড়ানোর সামগ্রিক দায়টাও চীন সরকারের। চীন চাইলেই অন্যান্য দেশগুলোতে করোনাভাইরাস ছড়ানোটা রোধ করতে পারতো। অথচ তারা সেটা করেনি দুষ্ট চিন্তা থেকে। চীনকে নিয়ে আরেকটা সন্দেহ করি ‘এটা গোপন নয়, সবাই জানে উন্নত অনেক রাষ্ট্র খুব গোপনে জীবাণু অস্ত্র তৈরি করে ভিন্ন ধরনের যুদ্ধ কৌশল হিসেবে, হয়তো করোনাভাইরাস চীনেরই তেমন কোনো প্রজেক্টের অংশ। প্র্যাকটিস ফিল্ডে পড়ে এটি উল্টো ঝামেলা করে ফেলেছে’। বলছি না আমি সঠিক, এটা আমার সন্দেহজনিত চিন্তা, যা হতেও পারে টাইপ আর কি। চীনের নাগরিকরা বিপদে আছেন সেটা স্বীকার করি, কিন্তু আমরা নিজেরাও এই বিপদে চীনের বাইরে ভিন্নভাবে আছি। এটা আসলে খুবই বাজে হচ্ছে। চীন নিজে বাঁশ খেয়ে সেই বাঁশের ভাগটাই অন্যদের বিতরণ করেছে সাধুটা সেজে। পশ্চিমা রাষ্ট্রগুলো করোনাভাইরাস টের পেয়ে হল্লা না বাধালে আমরা এটা নিয়ে কোনো কিছুই বুঝতে পারতাম না। চীন মহাঅন্যায় করেছে তাতে কোনো সন্দেহ নেই। ফেসবুক থেকে

সর্বাধিক পঠিত