প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

ক্যাসিনো সংক্রান্ত মানিলন্ডারিং মামলায় এক বছরে ৩৩১ কোটি ৬০ লাখ টাকা জব্দ করেছে সিআইডি

সুজন কৈরী : জব্দ টাকা রাষ্ট্রীয় কোষাগারে জমা রাখা হয়েছে। ক্যাসিকাণ্ডের ঘটনায় মামলা দায়ের করা হয়েছে ৮টি। এসব মামলায় পুলিশের অপরাধ তদন্ত বিভাগের ইকোমিক ক্রাইম স্কোয়াড গ্রেপ্তার করেছে অনন্ত ১১ জনকে। মামলাগুলো তদন্তাধীন রয়েছে।

মঙ্গলবার ইকোমিক ক্রাইম স্কোয়াডের বিশেষ পুলিশ সুপার মো. ফারুক হোসেন বলেন, কার্যকরের পর ২০১৫ সাল থেকে এখন পর্যন্ত মানি লন্ডারিং আইনে ইকোমিক ক্রাইম স্কোয়াড ১৯৯টি মামলা দায়ের করেছে। এতে এজাহারভুক্ত আসামি রয়েছেন ২৫৫ জন। সিএসভুক্ত আসামি রয়েছেন ২১৫ জন। এর মধ্যে ১০৩ জনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। মামলার চ‚ড়ান্ত নিষ্পত্তি হয়েছে ৯৫টি। এর মধ্যে অভিযোগপত্র দেয়া দেয়া হয়েছে ৭২ টির।

তিনি আরো বলেন, মানিলন্ডারিং সংক্রান্ত অন্য মামলা থেকে ৫০ কোটি ৭০ লাখ টাকা জব্দ করা হয়েছে। মোট জব্দ হয়েছে ৩৮২ কোটি ৩০ লাখ টাকা। বর্তমানে ১০৪টি মামলার তদন্ত চলছে।

২০১২ সালে মানিলল্ডারিং আইন পাশ হয়। ২০১৫ সালে সংশোধিত আকারে কার্যকর হয়। এর প্রায় চার বছর পর গত বছরের জানুয়ারির শেষে মানিলন্ডারিং প্রতিরোধ আইন, ২০১২ এর বিধিমালা প্রণয়ন হয়। যা মানিলন্ডারিং প্রতিরোধ বিধিমালা ২০১৯ নামে অভিহিত। আইনের ২৭টি প্রেডিকেট অফেন্সের ২৪টির তদন্তের ক্ষমতা সিআইডিকে দেয়া হয়েছে। ১৮টির একক তদন্তের ক্ষমতা রয়েছে সংস্থাটির। আর বাকি ৬টি অন্য সংস্থার সঙ্গে যৌথভাবে তদন্ত করতে পারবে।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত