প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

প্যালিনড্রোমের দিনটি স্মৃতির পাতায় ধরে রাখতে বৃদ্ধাশ্রমে আলোড়িত ৩০

ইবি প্রতিনিধি : প্যালিনড্রোমের দিনটি স্মৃতিতে ধরে রাখতে ভালোবাসার আলো ছড়িয়ে দিতে সন্তানের দরদ নিয়ে একটুখানি আনন্দের ভাগ দিতে বৃদ্ধাশ্রমে ছুটে গেছেন ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের ২০১৫-১৬ শিক্ষাবর্ষের একঝাঁক তরুন শিক্ষার্থী। যাদের হাতেই ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের সকল বিভাগের শিক্ষার্থীদের নিয়ে তৈরি হয়েছিল বন্ধুত্বের বন্ধন আলোড়িত ৩০।

গত ২৮ জানুয়ারি বিশ্ববিদ্যালয়ের ইতিহাসে প্রথম বারের মতো সম্মিলিত র‍্যাগ ডে উদযাপন করেছেন তারা। এর আগে তারা ব্যাচ ডে পালন, রক্তদান কর্মসূচিসহ বিভিন্ন সামাজিক ও সাংস্কৃতিক কাজ করেছেন।

০২ ফেব্রুয়ারী (রবিবার) রাতে কুষ্টিয়া সদরে অবস্থিত উদয় মা ও শিশু পূণর্বাসন কেন্দ্রে সন্তানের দরদ নিয়ে বৃদ্ধা মায়েদের কাছে ছুটে গেছেন তারা। গান, আড্ডা, গল্পসহ নানা আয়োজন শেষে একসাথে বৃদ্ধা মায়েদেরকে নিয়ে রাতের খাবার খেয়েছেন।

এসব তরুণদেরকে বৃদ্ধারা কেউ সন্তানের মতো মনে করছেন, কেউ আবার নাতি-নাতনীর মতো আদর করছেন এভাবেই অনেক সময় গল্প আর আড্ডায় অতিবাহিত করে একসাথে প্রায় ২৫জন বৃদ্ধাদের রাতের খাবার খেয়ে সেখান থেকে প্রস্থান করেন শিক্ষার্থীরা।

এসময় এক আনন্দ ও আবেগঘন পরিবেশের সৃষ্টি হয়। হাসি কান্নার স্মৃতিতে দিনটি ছিল সকলের কাছে এক স্মরণীয় দিন।

এই দিনটি স্মরণীয় করে রাখতে অনেকেই বিশেষ পরিকল্পনা নিয়েছেন। কেউ কেউ বিয়ে করে জীবনসঙ্গীসহ নানা পথ বেছে নিয়েছেন। কিন্তু ব্যতিক্রম কিছু আয়োজন করেছেন ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের একঝাঁক তরুন শিক্ষার্থী। দিনটিকে স্মৃতির পাতায় ধরে রাখতে তারা ছুটে গেছেন বৃদ্ধাশ্রমে। মায়ের বয়সী, দাদীর বয়সী মহিলাদের সাথে দীর্ঘসময় কাটিয়ে প্রশান্তির ছোঁয়া নিয়ে পূনরায় সবাই নিজ গন্তব্যে ফিরে যান।

এ বিষয়ে মাহফুজ নামের একজন শিক্ষার্থী বলেন, বিশেষ দিন গুলো আমরা বেশিরভাগ সময় প্রিয় মানুষদের সাথে কাটিয়ে থাকি, দায়িত্ব বলি আর আবেগের জায়গা থেকেই বলি না কেন, দিন শেষে আমরা প্রতেকেই মানুষ। এমন একটি দিনে বৃদ্ধা মায়েদের সাথে কাটাতে পেরে আমি আমরা সকলেই অনেক আনন্দিত এবং গর্বিত।

প্রসঙ্গত, প্যালিনড্রোম হলো এমন কোনও সংখ্যা বা বিভাগ, যা শেষ বা পিছন থেকে লেখা হলে একই সংখ্যা গঠন করবে। তাই আজ, ফেব্রুয়ারির ২ তারিখ, ২০২০ সাল একটি প্যালিনড্রোম ডেট। এর আগে প্যালিনড্রোমটি ছিল ১১-১১-১১১১। ৯০৯ বছর আগে এই তারিখ এসেছিল। এই জাতীয় তারিখগুলোকে “সর্বব্যাপী প্যালিনড্রোমস” বলে এবং এটি ১০১ বছরের জন্য আর কোনও পাওয়া যাবে না। এর পরে, আপনাকে ৩ মার্চ, ৩০৩০ অবধি অপেক্ষা করতে হবে। এই শতাব্দীতে এমন একটি পারফেক্ট প্যালিনড্রোম আর দেখা যাবে না। সে হিসেবে, পরবর্তী প্যালিনড্রোম তারিখটি হবে ১২-১২-২১২১ অর্থাৎ ১০১ বছর পর। এর পরেরটি আসবে ০৩-০৩-৩০৩০ সালে।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত