প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

মিয়ানমার থেকে একদিনে ৯৬৪মেট্রিকটন পেঁয়াজ আমদানি

ফরহাদ আমিন,টেকনাফ(কক্সবাজার) : মিয়ানমার থেকে স্থানীয় ব্যবসায়ীরা পেঁয়াজ আমদানি অব্যাহত রেখেছেন।শনিবার একদিনে ১১ব্যবসায়ীর কাছে ১২টি ট্রলারে করে ৯৬৪দশমিক ৭৫০মেট্রিকটন পেঁয়াজ টেকনাফ স্থলবন্দরে এসেছে।

চলতি ফেব্রুয়ারি মাসে প্রথম দফায় মিয়ানমার থেকে নৌপথে ৯৬৪দশমিক ৭৫০ মেট্রিকটন পেঁয়াজ আমদানি করা হয়েছে।বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন টেকনাফ স্থলবন্দরের কাস্টমস সুপার আফসার উদ্দিন।তিনি বলেন,গত বছরের২৯সেপ্টেম্বর থেকে পেঁয়াজ রপ্তানি বন্ধ করে দেয় ভারত।এরপর ৩০সেপ্টেম্বর মিয়ানমার থেকে প্রথম চালানে ৬৫০টন পেঁয়াজ আসে।এরপর থেকে শনিবার বিকেল পর্যন্ত মিয়ানমার থেকে ৭৭হাজার ৪৩৮দশমিক ২৪৯টন পেঁয়াজ আমদানি করা হয়।সকালে ব্যবসায়ী আব্দুল

জব্বারের২২৪দশমিক৫৪১;শওকতের৪২দশমিক৭৭২;হাফেজের১২দশমিক০০;নাসিরের১৫দশমিক৩৫৫;মো:আইয়াজের৭১দশমিক২৮৬; যদু বাবুর৭১দশমিক২৮৫;রহিমের৮৫দশমিক৫৪২; এম এ হাশেমের৭১দশমিক২৮৫; মো:মাসুমের ৭১দশমিক২৮৫; বাহদুরের২১৩দশমিক৮৫৫; মোঃ সলিমের৮৫দশমিক৫৪৪ মেট্রিকটন পেঁয়াজ স্থলবন্দর আসে।তিনি আরো বলেন,জানুয়ারি মাসে পেঁয়াজ আমদানির ফলে অন্য পণ্য কম আমদানি হয়েছে।পেঁয়াজের পাশাপাশি অন্যান্য পণ্য আমদানি করতে ব্যবসায়ীদের উৎসাহিত করা হচ্ছে।

আমদানি কারক নাসির উদ্দিন বলেন,চাহিদা থাকায় মিয়ানমার থেকে পেঁয়াজ আমদানি করা হচ্ছে। আমদানিকৃত পেঁয়াজ স্থানীয় বাজার ও চট্টগ্রামসহ বিভিন্ন স্থানে সরবরাহ করা হচ্ছে।

এ প্রসঙ্গে স্থলবন্দর পরিচালনাকারী প্রতিষ্ঠানের ইউনাইটেড ল্যান্ড পোর্ট টেকনাফ লিমিটেডের মহাব্যবস্থাপক জসিম উদ্দিন বলেন,মিয়ানমার থেকে বেশি পরিমাণে পেঁয়াজ আমদানি করছে ব্যবসায়ীরা আমদানিকৃত পেঁয়াজ দ্রুত সময়ে খালাস করা হচ্ছে।শনিবার সন্ধ্যা সাড়ে৭টা পর্যন্ত ৭৪টি পেঁয়াজ ভর্তি ট্রাক দেশের বিভিন্ন বিভাগীয় শহরের উদ্দেশ্যে স্থলবন্দর ছেড়ে গেছে।

সর্বাধিক পঠিত