প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

যদি কারও কোনো সন্দেহ থাকে মিজানুর রহমান আজহারী, তারেক মনোওয়ার ও আমির হামজারা জামায়াতি নয়, তাদের জন্য করুণা

সুলতান মির্জা : রাজাকার সাঈদীর ধর্মপোলা মিজানুর রহমান আজহারীর ওয়াজ-মাহফিলে অনুমান নির্ভর ২ লাখ, ৫ লাখ, ৮ লাখ, মানুষের উপস্থিতি মানেই এটা প্রমাণ করে না আজহারীর জনপ্রিয়তা দেখেই কেউ হিংসে করছে। ২০১৩ সালের ৫ মের কথা মনে আছে? হেফাজতি ও তাদের সমর্থক বিএনপি-জামায়াতিদের ভাষ্যমতে, ঢাকায় লোক হাজির হয়েছিলো ৫০ লাখ, যদিও কনফিউশন আছে, তারপরেও তর্কের খাতিরে ধরে নিলে যে ৫০ লাখই সঠিক। প্রশ্ন হচ্ছে এই লোকগুলো কারা ছিলো? সবাই কি হেফাজত সেটেল করতে ঢাকায় এসেছিলো? অবশ্যই না। এইজন্য যে হেফাজতের ওই সমাবেশে সারাদেশের বিএনপির যারা আসতে পারে, জামায়াত শিবিরসহ সরকার বিরোধী ইসলামী দলগুলো বাধ্যতামূলক এবং হেফাজত নিয়ন্ত্রিত কওমী মাদ্রাসার সকল ছাত্র অভিভাবক বাধ্যতামূলক হাজির থাকতে বলা হয়েছিলো। ফাইনালী কী হলো? হেফাজতের আমির তেঁতুল শফীকে হেলিকপ্টারে তোলার লোক খুঁজে পাওয়া যায়নি।

তো আজকে এই যে মিজান আজহারীর ওয়াজে এতো লাখ ততো লাখ লোকের ডাক শুনি। আমরা কেন বিশ্বাস করতে পারি না, ইটস অ্যা রেগুলার জামায়াত-শিবির ক্যাম্পেইন, যে এলাকায় মাহফিল ওই এলাকার আশেপাশের কয়েক জেলা থেকে কমপ্লিটলি জামায়াত-শিবিরের কর্মীসমর্থক উপস্থিতি বাধ্যতামূলক, পাশাপাশি বিএনপি ছাত্রদল ও ম্যানেজড গত কয়েক বছরে আওয়ামী লীগে ঢুকিয়ে দেওয়া লীগার উপস্থিতি। অর্থাৎ রাজাকার সাঈদীর বিকল্প কাউকে তৈরি করতে ত্যাগ করার মতো বিষয়াদি…। দেখুন রাষ্ট্রের চেয়ে শক্তিশালী কেউ না, আজহারী, মনুওয়ার, আমির হামজাসহ আরও বেশ কয়েকজন সিলেক্টেড বক্তা সরাসরি জামায়াত পুনর্গঠন করতে টেকনিক্যাললি কাজ করছে। গ্যারান্টি দিয়ে বলতে পারি ক্রমান্নয়ে পাবলিকলি প্রমাণ দেওয়ার পরে একজন আদর্শিক আওয়ামী লীগের কোনো স্তরের নেতা বা কর্মী জামায়াতিদের ব্রেইনওয়াশড এজেন্ডা বাস্তবায়নের ওয়াজ মাহফিলে উপস্থিত থাকতে পারে না। আওয়ামী লীগের নামধারী যারা যায়, তারা বহিরাগত অনুপ্রবেশকারী। যদিও তাদের সংখ্যা বেশ ভালো। আজকে দেখলাম ধর্ম প্রতিমন্ত্রী আজহারীর বিষয়ে কথা বলেছে, ক্রমান্নয়ে আরও বলবে অনেক এমপি-মন্ত্রী ও ধর্মের গর্তে ডুবে থাকা আওয়ামী লীগের এক শ্রেণির নেতারা। কারণ তারা প্রমাণ চেয়েছিলো আমরা প্রমাণ দিয়েছি। এরপরেও যদি কারও কোনো সন্দেহ থাকে মিজানুর রহমান আজহারী, তারেক মনুওয়ার, আমির হামজারা জামায়াতি নয়, তাদের জন্য শুধুই করুণা রইলো। ফেসবুক থেকে

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত