প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

পাঁচদিনের ক্রিকেট নিয়ে কাঁটাছেড়া উচিত নয়, চারদিনের টেস্ট আমার অপছন্দ, বললেন স্টিভওয়াহ

স্পোর্টস ডেস্ক : ২০২৩ সাল থেকে পাঁচদিনের বদলে চারদিনের টেস্ট ক্রিকেট আয়োজনের ভাবনাচিন্তা শুরু করেছে আইসিসি। ক্রিকেট ক্যালেন্ডারকে বেশ কিছুটা ফাঁকা করতে এবং দর্শক টানতেই এমন ভাবনা। যা নিয়ে দ্বিধাবিভক্ত ক্রিকেট দুনিয়া। ভারত অধিনায়ক বিরাট কোহলি, কিংবদন্তি ব্রায়ান লারা যেমন এমন প্রস্তাবের বিরোধিতা করেছেন, তেমনই আবার শেন ওয়ার্ন, মার্ক টেলর, মাইকেল ভনরা বিশ্ব ক্রিকেটের নিয়ামক সংস্থার (আইসিসি) ভাবনাকে সমর্থন জানিয়েছেন। এবার শচীন-লারা-কোহলির সুরই শোনা গেল স্টিভ ওয়াহ’র গলায়। সাফ জানিয়ে দিলেন, চারদিনের টেস্ট ম্যাচ তার না পছন্দ।

সেচ্ছাসেবী সংস্থা উদয়ন-এর ৫০তম বর্ষপূর্তিতে রোববার বারাকপুরে হাজির হয়েছিলেন কিংবদন্তি স্টিভ ওয়া। দীর্ঘদিন ধরে এই সংস্থার সঙ্গে জড়িত তিনি। ১৯৭০ সালে স্টিভেন জেমসের হাত ধরে পথ চলা শুরু উদয়নের। লেপ্রোসি আক্রান্ত অনাথদের দেখভাল ও তাদের উজ্জ্বল ভবিষ্যৎ গড়তে বড় ভূমিকা নিয়েছে এই সংস্থা। আর তারই প্রতিষ্ঠাতা জেমসের মূর্তি উন্মোচনের অনুষ্ঠানে এসেছিলেন প্রাক্তন অজি অধিনায়ক। সাধারণতন্ত্র দিবসে দুপুরে কচিকাঁচাদের সঙ্গে ব্যাট হাতে ক্রিজেও নেমে পড়েছিলেন তিনি। আর তার মাঝেই বর্তমান ক্রিকেটের নানা প্রসঙ্গে উঠে এল বিশ্বজয়ী অধিনায়কের কথায়।

ক্রিকেটের প্রতি ভারতীয়দের ভালবাসা চিরকালই আকৃষ্ট করে স্টিভকে। এবার সেই বিষয়টি ছবির মাধ্যমে বইয়ের আকারে তুলে ধরতে চান তিনি। বলেন, ভারতে ক্রিকেটটা ধর্ম। এখানে দৃষ্টিহীনদের ক্রিকেট থেকে মহিলা ক্রিকেট, সবই হয়। আর এই ব্যাপারটাকেই ছবির মধ্যে দিয়ে তুলে ধরবো। ‘স্পিরিট অফ ক্রিকেট’ শীর্ষক একটা ফটোগ্রাফি বই লেখা হচ্ছে।

সেখানে ভারতের বিভিন্ন প্রান্তের ছবি থাকবে। এরপরই স্টিভের মুখে শোনা যায়, আইসিসির চারদিনের টেস্ট ভাবনার প্রসঙ্গ। টেস্ট নিয়ে পরীক্ষা-নিরীক্ষা করার বিরোধী তিনি। বলেন, আইসিসি চাইছে চারদিনের মধ্যে খেলা শেষ করতে। আমার মনে হয় না টেস্ট নিয়ে কাটাছেঁড়া করাটা উচিত নয়। কোনও দল যদি তিন-চারদিনের মধ্যে খেলা শেষ করতে পারে, সেটা আলাদা ব্যাপার। কিন্তু নিয়ম করে চারদিন করে দেওয়াটা ঠিক হবে না।

চলতি বছরই অস্ট্রেলিয়ায় বসবে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের আসর। যার জন্য প্রস্তুতি নিচ্ছে সমস্ত ক্রিকেট খেলীয় দেশগুলো, তবে স্টিভের পছন্দের তালিকায় রয়েছে দুটি দেশ। ভারত ও অস্ট্রেলিয়া। নিজের দেশ নিয়ে দারুণ আশাবাদী তিনি। বললেন, অস্ট্রেলিয়া ঠিক পথে এগোচ্ছে। আশাকরি ওরা ভাল খেলবে। ভারতও খুব ভাল ফর্মে রয়েছে। তাই আমার মনে হয় ভারত আর অস্ট্রেলিয়াই সেরা দল হয়ে উঠবে। আর অস্ট্রেলিয়াই জিতবে।

সর্বাধিক পঠিত