প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

ভারতের দাদাগিরির রাজনীতির প্রভাব সীমান্তে গিয়ে পড়েছে, বললেন তৈমুর খন্দকার

সানজীদা আক্তার : বহু বছর আগে পাকিস্তান হওয়ার সময় প্রচার করেছে যে মুসলমানদের জন্য পাকিস্থান আর হিন্দুদের জন্য ভারত।আমাদের দেশেও বিএনপি,জামায়াত ইসলামের এই রাজনীতির ভিতরে যারা আছে তারাও কিন্তু সাম্প্রদায়িক কথা বলতো।

ধর্মের ভিত্তিতে বিভাজনিয় বিকেন্দ্রীকরণ যারা বলতো তাদেরকে অশ্লীল,কুৎসিত গালাগালি আমরা বাংলাদেশেও দেখেছি।আমি নিজেও শুনেছি যে জয় বাংলা জয় হীন লুঙ্গি ছেড়ে ধুতি ফিন্দ এটা জিয়ার নির্বাচনের স্লোগানে শুনেছি বললেন সিনিয়র সাংবাদিক অজয় দাসগুপ্ত ।

সময়টিভির সম্পাদকীয় টকশো অনুষ্ঠানে তিনি এসব কথা বলেন।

এমপি নজরুল ইসলাম বাবু বলেন,সিমান্তে যে হত্যাকান্ড ঘটে সেগুলো কিনÍু এক প্রকার দালাল চক্রের কারণেই মূলত ঘটে।পররাষ্ট্রনীতির কথা যদি বলি তাহলে বাংলাদেশ সর্বকালেন সর্বশ্রেষ্ঠ পর্যায়ে রয়েছে।

বিএনপি চেয়ার পারসনের উপদেষ্টা অ্যাডভোকেট তৈমুর আলম খন্দকার বলেন, বাংলাদেশ ভারতের বন্ধু।আমরাও বন্ধুত্ব রাখতে চাই।পাশ্ববর্তী রাষ্টের সঙ্গে বন্ধুত্ব করা ছাড়া একটি দেশ সুন্দর ভাবে চলতে পারে না।

কিন্তু এই যে আপনার ভারতের পানি সমস্যা নদী,ব্যবসা-বাণিজ্য এসব বিষয় এই বর্ডারকে পুরো এলোমেলো অবস্থা করে রাখলো এটার জন্য সম্পূর্ণ্য ভারত দায়ী।এটাকে বন্ধুত্ব বলে না। ভারতের বর্তমান সরকার কোথাও কোনো শান্তি চায় না।তারা নিজেরা মনে করে আমরাই সর্বশ্রেষ্ঠ।বাংলাদেশর তিনদিকেই ভারত আর এক দিকে সাগর,অতএব ভারতের যে দাদাগিরি এটা তারা অব্যাহত রাখতে চায়।এসব রাজনীতির প্রভাব সিমান্তে গিয়ে পড়ছে। সম্পাদনা:বাচ্চু

সর্বাধিক পঠিত