প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

গণপরিবহনে যাতায়াত এক ধরণের ভীতির কারণ হয়ে দাঁড়িয়েছে, বললেন নির্মাতা সৈয়দ নীলিমা দোলা

মিনহাজুল আবেদীন: ঢাকাকে অনিরাপদ নারীরা চান, রাতের অন্ধকারে আলোর নিশ্চয়তা, পরিবহন ব্যবস্থা, সংবেদনশীল পুলিশের যথেষ্ট উপস্থিতি এবং বিপদের সময় তাৎক্ষণিক সহযোগিতা।

প্রতিটি পাড়া মহল্লায়, এমন কী প্রধান সড়ক গুলোতে আছে নারীর জন্য ঝুঁকিপূর্ণ স্থান, বেসরকারি গবেষণা বলছে, ৯৪ শতাংশ নারী গণপরিবহনে যৌন হয়রানির শিকার হন, নিরাপদ না থাকায় রাজধানীতে শৌচাগার ব্যবহার করে না ৯৬ শতাংশ নারী, রাজধানীর ৪৭.৫ জন নারী গণপরিবহন, রাস্তা কিংবা উন্মুক্ত জনবহুল এলাকায় চলাফেরা করতে নিরাপত্তাহীনতায় ভুগেন।

শুক্রবার ডিবিসি বাংলার এক সাক্ষাৎকারে স্থপতি সৈয়দ নীলিমা দোলা বলেন, গত বছর প্রায় ৫৭টি মেয়ে, গণপরিবহনে হয়রানির শিকার হয়েছে। তবে শুধু নারী নয় পুরুষও নির্যাতিত হচ্ছে।

তিনি আরও বলেন, আইনের যথাযথ প্রয়োগ এখানে নেই, সুষ্ঠু প্রয়োগ করলেই অনেক কিছুর সমাধান ঘটবে। নারীবান্ধব ঢাকা গঠনে রাজনৈতিক ব্যক্তিদের এগিয়ে আসতে হবে। পাশাপাশি পর্যাপ্ত আলোর ব্যবস্থা, শৌচাগার, গণপরিবহন ব্যবস্থা, সিকিউরিটির নিরাপত্তা জোরদার করতে পারলে এর সমাধান হবে।

অনুষ্ঠানে উইমেন রাইটস অ্যান্ড জেন্ডার ইক্যুয়েলিটি,অ্যাকশন এইডের ম্যানেজার মরিয়ম নেছা বলেন, আমরা সমস্যাটাকে স্বীকার করি না, যখন আমরা দেখব সমস্যা আছে, তখন আমরা সেটা সমাধাণের চেষ্টা করবো। কিন্তু যখন আমি এই সমস্যা নিয়ে ভাবছি না, তখন এর সমাধান কীভাবে হবে।

তিনি বলেন, এর প্রতিকারের জন্য আমাদের অবকাঠামোর কাজ করতে হবে, অন্য দিকে মানুষের মানসিকতার পরিবর্তন করতে হবে। তারা যেন নারীকে সম্মান করে, শুধুমাত্র সম্মানটায় পারে; একজন নারীকে অনেক ধরণের নিরাপত্তাহীনতা থেকে রক্ষা করতে। সম্পাদনা: রাশিদ

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত