প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

জুন থেকেই চালু ‘এক ভারত, এক রেশন কার্ড’, ঘোষণা কেন্দ্রীয় মন্ত্রীর

রাশিদ রিয়াজ ন: এক দেশ, এক প্রধান আর এক নিশান। জনসংঘের প্রতিষ্ঠাতা ড. শ্যামাপ্রসাদ মুখোপাধ্যায় এই স্লোগান তুলেছিলেন আজ থেকে প্রায় ৭০ বছর আগে। ভারতের অন্য রাজ্যের তুলনায় কাশ্মীরের নিয়ম-কানুন আলাদা হওয়ায় তীব্র প্রতিবাদ জানিয়েছিলেন তিনি। এই সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে তৈরি করেছিলেন নতুন স্লোগান।

এবার দ্বিতীয় ইনিংস শুরু করার পরেই কাশ্মীরের বিশেষ সুবিধা প্রত্যাহার করেছে নরেন্দ্র মোদির সরকার। এরপর অভিন্ন দেওয়ানি বিধি প্রণয়নের চেষ্টা চলছে বলেও গেরুয়া শিবির সূত্রে খবর। এরই ফাঁকে নাগরিকদের খাদ্যের অধিকার সুনিশ্চিত করতে এক দেশ, এক রেশন কার্ড চালু করতে চলেছে কেন্দ্রীয় সরকার। সোমবার কথা ঘোষণা করলেন গ্রাহক পরিষেবা, খাদ্য ওগণবন্টন মন্ত্রকের মন্ত্রী রামবিলাস পাসোয়ান।

সোমবার পাটনায় সাংবাদিকদের মুখোমুখি হয়ে তিনি বলেন, এবছরের প্রথমদিন থেকেই প্রাথমিকভাবে দেশের ১২টি রাজ্যে এই ব্যবস্থা চালু হয়েছে। সেই রাজ্যগুলি হল অন্ধ্রপ্রদেশ, তেলেঙ্গানা, গুজরাট, মহারাষ্ট্র, হরিয়ানা, রাজস্থান, কর্ণাটক, কেরল, গোয়া, মধ্যপ্রদেশ, ত্রিপুরা ও ঝাড়খণ্ড। এই রাজ্যগুলির নাগরিকরা একে অপরের রাজ্যে গিয়ে নিজেদের রেশন কার্ড দেখিয়ে প্রাপ্য রেশন সংগ্রহ করতে পারবেন। কোনও সমস্যাই হবে না। আগামী জুন মাসের পয়লা তারিখ থেকে এ প্রকল্প শুরু হতে চলেছে গোটা দেশেই। এর ফলে দেশের নাগরিকরা যেকোনও প্রান্তের রেশন দোকান থেকে সরকার নির্ধারিত ভর্তুকি-সহ খাদ্যশস্য কিনতে পারবেন।

প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, গত বছরেই এই বিষয়ে কাজ শুরু করেছিল কেন্দ্রীয় খাদ্যমন্ত্রক। ডিসেম্বরে সেই কাজের বেশিরভাগ অংশই সম্পূর্ণ হয়ে যায়। এরপরই আগামী বছরের ৩০ জুন থেকে গোটা দেশে এই ব্যবস্থা চালু করা হবে বলে জানিয়েছিলেন রামবিলাস পাসোয়ান। এর ফলে কেরলের এক বাসিন্দা যদি কর্মসূত্রে গুজরাটে থাকেন, তাহলে সেখান থেকেই নিজের প্রাপ্য রেশন সামগ্রী কিনতে পারবেন।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত