প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

সাতক্ষীরায় সাজানো মিথ্যা অপহরণ ও মানবপাচার মামলার প্রতিবাদে সংবাদ সম্মেলন

সাতক্ষীরা প্রতিনিধি ঃ সাতক্ষীরা সদর উপজেলার ফিংড়ি এলাকার স্বপন মিস্ত্রী কর্তৃক তার নিজ কন্যাকে আত্মগোপনে রেখে প্রতিবেশীর বিরুদ্ধে মিথ্যা অপহরণ ও মানবপাচার মামলা দায়েরসহ স্কুল শিক্ষিকার বিরুদ্ধে মিথ্যাচার করেছে বলে অভিযোগ উঠেছে। মঙ্গলবার দুপুরে সাতক্ষীরা প্রেসক্লাবে এক সংবাদ সম্মেলনে এ অভিযোগ করেন, সদর উপজেলার দক্ষিণ ফিংড়ি গ্রামের মৃত খান শাহাজান আলীর ছেলে ওহিদুল শেখ।

তিনি তার লিখিত বক্তব্যে বলেন, আমার স্ত্রী আছিয়া খাতুন একজন স্কুল শিক্ষিকা। আমাদের বাড়ির চারপাশে হিন্দু সম্প্রদায়ের বসবাস। তাদের সাথে আমাদের অত্যান্ত সু-সম্পর্ক রয়েছে। সম্প্রতি একই এলাকার আমাদের প্রতিবেশী স্বপন কুমার মিস্ত্রির কন্যা সীমা রানী গত ০১/১২/২০১৯ তারিখে স্বেচ্ছায় বাড়ি থেকে চলে যায়। ওই রাতেই স্থানীয় ইউপি মেম্বর সুকুমার রায়হানের কাছে জিজ্ঞাসা করে সীমা কোথায় আছে ? এরপর ওই মেম্বর সেখান থেকে এসে আমাকে বলেন, সীমা বাড়ি থেকে চলে গেছে, কিন্তু রায়হানের কথা অনুযায়ী সে তো নির্দোষ। এদিকে, এখবর পেয়ে আমরা উভয়ে একত্রিত হয়ে বিভিন্ন স্থানে খোঁজাখুঁজি করে সীমাকে উদ্ধার করে শ্যালক আব্দুল্লাহ সরদার, রেজিস্ট্রার আলাউল করিমের সহযোগিতায় স্থানীয় সাবেক মেম্বর মাহফুজের হাতে সীমাকে তুলে দেই। এরপর সীমাকে বাড়ি নিয়ে সাবেক মেম্বর মাহফুজ এবং বর্তমান মেম্বর সুকুমার বেধড়ক মারপিট করে। সীমা বাড়ি যাওয়ার পরদিন তার বাবা স্বপন মিস্ত্রি তাকে আত্মগোপনে রেখে অপহরণ করা হয়েছে মর্মে আমার ও আমার পুত্রের বিরুদ্ধে মিথ্যা অপহরণ মামলা দায়ের করে। শুধু এতেই ক্ষ্যান্ত হয়নি তিনি মঙ্গলবার (২১ জানুয়ারী) আমাদের বিরুদ্ধে আবারও একটি মানব পাচার আইনে মিথ্যা মামলা দায়ের করেছে। তিনি এ সময় প্রশ্ন রেখে বলেন, সীমা উদ্ধার হওয়ার পরও কিভাবে আমাদের বিরুদ্ধে একের পর এক মিথ্যা মামলা করা হচ্ছে এটি আমার বুঝে আসে না। তিনি বলেন, স্বপন মিস্ত্রি অসৎ উদ্দেশ্যে আমাদের বিরুদ্ধে মিথ্যা মামলা দায়ের করেছে। ইতিমধ্যে অপহরন মামলায় আমি জামিনও নিয়েছি। তিনি আরো বলেন, আমরা শান্তি প্রিয় মানুষ। অপহরণ তো দূরের কথা কোন ধরনের ঝামেলার সাথে আমরা জড়াতে চায় না। অথচ স্বপন মিস্ত্রি ব্যক্তিগত ক্ষোভ মেটাতে একের পর এক আমাদের বিরুদ্ধে মিথ্যা মামলায় জড়িয়ে হয়রানি করে যাচ্ছে। এছাড়া আমার স্কুল শিক্ষিকা স্ত্রী আছিয়ার বিরুদ্ধেও পত্র-পত্রিকায় মিথ্যা তথ্য সরবরাহ করে ভিত্তিহীন বানোয়াট সংবাদ পরিবেশন করা হয়েছে। বর্তমানে স্বপন মিস্ত্রী আমাদের বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র করে আমাদের পুরো পরিবারটিকে ধ্বংসের দ্বার প্রান্তে পৌছে দিয়েছে। এদিকে, এ ঘটনায় আমার পুত্রকে আমরা মারপিট করলে সেও আমাদের কাউকে কিছু না জানিয়ে বাড়ি থেকে অজ্ঞাত স্থানে চলে গেছে। আমরা তারও কোন সন্ধান পাচ্ছি না। বর্তমানে স্বপন মিস্ত্রীর দায়ের করা মিথ্যা মামলায় আমরা দিশেহারা হয়ে পড়েছি। এমতাবস্থায় তিনি (ওহিদুল শেখ) উক্ত স্বপন মিস্ত্রির দায়ের করা মিথ্যা মামলার হাত থেকে রক্ষা পেতে সাতক্ষীরার পুলিশ সুপারসহ সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের আশু হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত